বাংলাদেশ, , শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২

ভয়ভীতি কমলে বাড়বে করদাতা

আলোকিত কক্সবাজার ।।  সংবাদটি প্রকাশিত হয়ঃ ২০১৫-০৯-১৬ ১১:০৯:১৬  

আলোকিত কক্সবাজার ডেক্স:

আয়কর নিয়ে মানুষের মাঝে ভয়ভীতি দূর করতে পারলে দেশের করদাতার সংখ্যা দ্রুত বেড়ে যাবে বলে মন্তব্য করেছেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু। বুধবার রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে সকাল সাড়ে ১১টায় সপ্তাহব্যাপী আয়কর মেলার উদ্বোধনকালে তিনি এ কথা বলেন।
Amu20150916071355
শিল্পমন্ত্রী বলেন, দেশের জনসংখ্যা অনুযায়ী প্রতিবেশী দেশের তুলনায় আমাদের আয়কর দাতার সংখ্যা অনেক কম। কর প্রদানে জটিলতাই এর প্রধান কারণ। করদাতারা আয়কর রিটার্ন পূরণ ও দাখিল করাকে ঝামেলাপূর্ণ মনে করেন। এসব নিয়ে বেশিরভাগ করদাতাদের মধ্যে ভীতি কাজ করে। আমি মনে করি এই ভয়ভীতি দূর করতে পারলে দেশে করদাতার সংখ্যা দ্রুত বেড়ে যাবে। তাই করদাতাদের আয়কর বিষয়ে অহেতুক ভয়ভীতি কাটাতে আয়কর মেলাতে আসার আহ্বান জানান তিনি।

তিনি বলেন, মেলায় আসলে করদাতারা কর পরিশোধসহ আইন ও বিধি সম্পর্কে স্বচ্ছ ধারনা পাবেন। তাহলে ভীতি কেটে যাবে।

আমির হোসেন আমু বলেন, করদাতাদের মধ্যে নেতিবাচক বিষয় দূর করার জন্য এনবিআর কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। এর মধ্যে আয়কর মেলা অন্যতম। আমি আশা করছি এই মেলা করবান্ধব পরিবেশ তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখবে।

দেশের স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধুর দ্বিতীয় বিপ্লবের মূল উদ্দেশ্য ছিল বাংলাদেশকে অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ করা। এজন্য তিনি ১৯৭২ সালে রাষ্ট্রপতির ৭৬ নম্বর আদেশ বলে এনবিআর গঠন করেন। বঙ্গবন্ধুর সেই স্বপ্নের হাত ধরে প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে অর্থনীতির কাক্ষিত অগ্রগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে। ইতিমধ্যে আমরা নিম্ন মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হয়েছি। করদাতার সংখ্যা যদি বাড়াতে পারি তাহলে ২০৪১ সালের আগেই কাক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারব।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে এনবিআর চেয়ারম্যান মো. নজিবুর রহমান বলেন, ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে সেরা করদতাদের সিআইপি মর্যাদা দেওয়ার দাবি উঠেছে এ বিষয়ে শিগগিরই নীতিগত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন এনবিআর সদস্য (কর প্রশাসন ও মানব সম্পদ উন্নয়ন) আবদুর রাজ্জাক।

উল্লেখ্য, আজ ১৬ সেপ্টেম্বর থেকে সপ্তাহব্যাপী শুরু হওয়া এই মেলা চলবে ২২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। করদাতাদের উৎসাহিত করতে ২০০৮ সাল থেকে এই মেলার আয়োজন করে আসছে জাতীয় রাজস্ব বোর্ড (এনবিআর)।

এ বছর দেশে প্রথমবারের মতো বিভাগীয় ও জেলা শহরের পাশাপাশি ৮৬ উপজেলায় একযোগে আয়কর মেলা উদযাপন হবে। ফলে ষষ্ঠবারের মতো আয়োজিত এ বছরের আয়কর মেলা হচ্ছে এ যাবৎকালের সর্ববৃহৎ।

মেলায় ১৭২টি বুথ ও ৫৬টি হেল্পডেস্ক রয়েছে। মেলায় করদাতারা আয়কর বিবরণী জমা দেওয়াসহ বিভিন্ন ধরনের সেবা পাবেন। ই-টিআইএন নিবন্ধন এবং পুনঃনিবন্ধন সুবিধা রয়েছে। আয়কর বিবরণী, ই-টিআইএন আবেদন ফরম এবং চালান ফরম বুথ থেকে সরবরাহ করা হচ্ছে।


পূর্ববর্তী - পরবর্তী সংবাদ
                                       
ফেইসবুকে আমরা