বৃহস্পতিবার, ২৫ Jul ২০২৪, ১০:৪৮ অপরাহ্ন

সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করা না হলে কক্সবাজার শহর অচল করে দেওয়া হবে:-বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা

সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করা না হলে কক্সবাজার শহর অচল করে দেওয়া হবে:-বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা

Exif_JPEG_420

অনলাইন বিজ্ঞাপন

প্রেস বিজ্ঞপ্তি

সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করা না হলে কক্সবাজার শহর অচল করে দেওয়া হবে। গত কাল ৭ জানুয়ারী বিকাল সাড়ে ৩ টায় ২নং ওর্য়াড আওয়ামীলীগের  বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তারা এসব কথা বলেন। পৌর আওয়ামীলীগের আওতাধীন ২ নং ওয়ার্ডের আইন বিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুল করিমের উপর ফিশারী ঘাটের চিহ্নিত সন্ত্রাসী মাইন উদ্দিন কর্তৃক বর্বরোচিত হামলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশের আয়োজন করে ২ নং ওর্য়াড আওয়ামীলীগ। বিক্ষোভ মিছিলটি ফিশারী ঘাট চত্তর থেকে আরম্ভ করে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষীন শেষে পৌরসভা চত্তরে সমেবেত হয়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করেন বিক্ষুব্ধ জনতা।Exif_JPEG_420উক্ত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রাধান অথিতি হিসেবে উপস্থি ছিলেন, পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক বাবু উজ্জল কর, সভাপতিত্ব করেন ২ নং ওর্য়াড আওয়ামীলীগের সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মাসুদ আযাদ।

জানা যায়, গত ৫ জানুয়ারী পৌর আওয়ামীলীগের উদ্যোগে গণতন্ত্রের বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষ্যে ২ নং ওর্য়াড আওয়ামীলীগের মিছিল নিয়ে পৌর আওয়ামীলীগের সমাবেশে যোগদান করার প্রস্তুতি নেওয়ার সময়, পূর্ব শত্রæতার জেরে ফিশারী ঘাটের চিহ্নিত সন্ত্রাসী মাইন উদ্দিন ও তার স্বশত্র সন্ত্রাসী গ্রæপ ২ নং ওর্য়াড আওয়ামীলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক ও বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মাহমুদুল করিমের উপর অর্তকিত অবস্থায় দারালো অস্ত্র দিয়ে নৃশংসভাবে হামলা চালায়। এতে তিনি গুরুতর আহত হয়ে মাটিতে লুটে পড়ে। স্থানীয় লোকজন ও দলীয় নেতা কর্মীরা তাকে আহত অবস্থায় কক্সবাজার সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। তার অবস্থা আশংঙ্খাজনক হওয়ায় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। বর্তমানে তিনি চমেক হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছে বলে জানা গেছে।

এদিকে হামলাকারী চিহ্নিত সন্ত্রাসী মাইন উদ্দিন বীরর্দপে এলাকায় ঘুরে বেড়াচ্ছে। আহতদের পক্ষ থেকে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হলেও প্রশাসনের নীরব ভূমিকায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন স্থানীয় জনসাধারন, দলের নেতৃবৃন্দ ও আহতের পরিবার।

এদিকে হামলার প্রতিবাদে আয়োজিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান অথিতির বক্তব্যে পৌর আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক বাবু উজ্জল কর বলেন, অনতিবিলম্বে ফিশারী ঘাটের ওই চিহ্নিত সন্ত্রাসী মাইন উদ্দিন কে গ্রেফতার পূর্বক দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির আওতায় আনতে হবে। অন্যতায় কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগের সমস্ত নেতা-কর্মীকে সাথে নিয়ে বৃহত্তর কর্মসূচীর ডাক দেওয়া হবে।
এসময় তিনি আরো বলেন, আমরা পৌর আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার ঘোষিত ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার কাজে নিরলসভাবে রাজপথে থেকে কাজ করে যাচ্ছি। এমন সময় আমাদের নিবেদীত এক বঙ্গসৈনিকের উপর সন্ত্রাসীদের নৃসংশ হামলা আমরা মেনে নেবো না। তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে আরো বলেন, মামলা হওয়ার পরও কার ইশারায় সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করছে না প্রশাসন। তা কতিয়ে দেখতে হবে এবং দলের নেতা কর্মীদের সজাগ থাকার নির্দেশ দেন।

উক্ত বিক্ষোভ সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে আব্দুল্লাহ আল মাসুদ আযাদ বলেন, মোহাম্মদ করিম একজন শান্তশিষ্ট তরুণ নেতা ও ব্যবসায়ী। তার উপর ওই চিহ্নিত সন্ত্রাসী মাইন উদ্দিন বর্বরোচিত হামলা চালিয়েছে। তা কিছুতেই মেনে নেওয়া যায় না। আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করা না হলে। পৌর আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ, ২ নং ওয়ার্ডের জন সাধারণ ও নেতাকর্মীদের সাথে নিয়ে কক্সবাজার শহর অচল করে দেওয়া হবে।

উক্ত সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন, ১০ নং ওর্য়াড আওয়ামীলীগের সভাপতি দীপক দাশ, ৩নং ওয়ার্ড সাধারণ সম্পাদক জানে আলম পুতু, পৌর আওয়ামীলীগ নেতা ডাঃ পরিমল দাশ, রিদুয়ান আলী, ২ নং ওয়ার্ড সাধারণ সম্পাদক আজিমুল হক আজিম।

এসময় আরো উপস্থিত ছিলেন, পৌর আওয়ামীলীগের তরুণ নেতা হাসান মেহেদী রহমান, সালাহ উদ্দিন সেতু, এবি ছিদ্দিক খোকন, ৩ নং ওয়ার্ড সভাপতি রফিক মাহমুদ, কাউন্সিলর মিজানুর রহমান, পৌর আওয়ামীলীগ নেতা গিয়াস উদ্দিন, শাকিল আহমেদ, হাসান মাহমুদ, মোশাররফসহ ২নং ওয়ার্ডের সর্বস্থরের জন সাধারন ও আওয়ামীলীগ, যুবলীগ, ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দ। এসময় উপস্থিত বিক্ষুব্ধ জনতা ও নেতৃবৃন্দ প্রশাসনকে অবিহিত করে বলেন, প্রশাসন যদি ওই চিহ্নিত সন্ত্রাসী মাইন উদ্দিন কে গ্রেফতার করতে ব্যর্থ হয়, তাহলে আমরা ঐক্যবদ্ধভাবে ওই সন্ত্রাসীকে এলাকা থেকে উৎখাত করতে বাধ্য হবো।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

নিবন্ধনের জন্য আবেদিত
Desing & Developed BY MONTAKIM