শনিবার, ১৩ Jul ২০২৪, ০৮:৫৪ পূর্বাহ্ন

রোনালদোদের হারিয়ে সেমিতে ফ্রান্স

রোনালদোদের হারিয়ে সেমিতে ফ্রান্স

অনলাইন বিজ্ঞাপন

রোনালদোকে কাঁদিয়ে সেমিতে ফরাসিরা। ছবি : সংগৃহীত

চলমান ইউরোতে হামবুর্গে পতুর্গাল ও ফ্রান্সের কোয়ার্টার ফাইনালের লড়াই শুরুর কিছুক্ষণ আগেই বিদায় নিশ্চিত হয়ে গেছে আসরের আয়োজক জার্মানির। কয়েক ঘন্টা পরেই জার্মানির দেখানো পথেই হাঁটতে হতো আসরের অন্যতম ফেভারিট দুই দল ফ্রান্স ও পর্তুগালের। ইউরো ২০২৪ এর দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনাল শেষে ফরাসিদের আসরে রেখে জার্মানির সঙ্গী হয়ে বিদায় নিল ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর পর্তুগাল। টাইব্রেকে ফ্রান্সের কাছে ৫-৩(০-০) গোলে হেরে বিদায় নিয়েছে পর্তুগাল।

বাংলাদেশ সময় শনিবার (৬ জুলাই) রাত ১টায় শুরু হওয়া ম্যাচ নির্ধারিত সময়ে গোলশূণ্য শেষ হয়। পরে অতিরিক্ত সময়েও কোন দল গোল করতে না পারায় ম্যাচ গড়ায় টাইব্রেকে। সেখানে শেষ হাসি হাসে ফরাসিরা। ৫-৩ ব্যবধান টাইব্রেকের জয়ে তারা দ্বিতীয় দল হিসেবে সেমিফাইনাল নিশ্চিত করলো।

ফ্রান্স উত্তেজনায় ভরা পেনাল্টি শুটআউটে পর্তুগালকে পরাজিত করে ইউরো ২০২৪ সেমিফাইনালে তাদের স্থান নিশ্চিত করেছে। হামবুর্গে অনুষ্ঠিত ম্যাচটি শেষ হয় থিও হার্নান্দেজের নির্ধারক পেনাল্টির মাধ্যমে। পর্তুগালের জোয়াও ফেলিক্স তার পেনাল্টি কিকটি মিস করেন।

শেষ কিকে থিওর গোলের পর ফরাসি খেলোয়াড়রা উল্লাসে ফেটে পড়ে, মাঠ জুড়ে দৌড়ে গিয়ে তাদের উল্লাসিত ভক্তদের সাথে মুহূর্তটি ভাগ করে নেয়। বিপরীতে, পর্তুগিজ দল, যারা মাত্র পাঁচ দিন আগে স্লোভেনিয়ার বিপক্ষে একটি শুটআউটে জিতেছিল, তারা হতাশ হয়ে পড়ে।

এই ম্যাচটি পর্তুগালের অধিনায়ক ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর জন্য একটি যুগের সমাপ্তি চিহ্নিত করেছে, যিনি ঘোষণা করেছিলেন যে এই টুর্নামেন্টটি তার চূড়ান্ত ইউরোপীয় চ্যাম্পিয়নশিপ হবে।

ম্যাচের আগে উত্তেজনা ৩৯ বছর বয়সী রোনালদো এবং ফ্রান্সের কিলিয়ান এমবাপ্পের মধ্যে একটি শোডাউনকে কেন্দ্র করে ছিল। তবে, কোনো তারকাই ম্যাচে তেমন প্রভাব ফেলতে পারেনি, যদিও রোনালদো সফলভাবে তার পেনাল্টি পরিণত করেছিলেন।

ভাঙা নাকের কারণে সুরক্ষামূলক মাস্ক পরে খেলা এমবাপ্পেকে অতিরিক্ত সময়ের মধ্যে মুখে আঘাত পাওয়ার কারণে বদলি করতে হয় যার ফলে তিনি শুটআউটে অংশ নিতে পারেননি।

ম্যাচটি সীমিত সুযোগের কারণে বেশ ম্যাড়মেড়ে ছিল। পর্তুগাল যদিও ভালো সুযোগ পেয়েছিল তবে ব্রুনো ফার্নান্দেজ এবং ভিতিনহা উভয়েই ফ্রান্সের গোলরক্ষক মাইক মাইগনকে পরাস্ত করতে ব্যর্থ হয়। ফ্রান্সের র‌্যান্ডাল কলো মুয়ানির শট রুবেন ডায়াস দ্বারা অল্পের জন্য সেভ হয়, এবং এডুয়ার্ডো ক্যামাভিঙ্গা কাছাকাছি পরিসর থেকে তার শটটি দূরের পোস্টের পাশে টেনে আনেন।

অতিরিক্ত সময় অগ্রসর হওয়ার সাথে সাথে, পর্তুগালের আশা ক্ষীণ হয়ে যায় যখন সাধারণত ডি-বক্সের সবচেয়ে নির্ভরযোগ্য খেলোয়াড় রোনালদো একটি সহজ সুযোগ মিস করেন। এই মিসটি ব্যয়বহুল প্রমাণিত হয় কারণ পর্তুগালের ভাগ্য তাদের এবারের পেনাল্টি শুটআউটে ছিল না। না হলে আগের ম্যাচেই প্রতিটি পেনাল্টি সেভ করা দিয়েগো কস্তা একটি পেনাল্টিও সেভ করতে পারেন না?

ফ্রান্সের বিজয় অবশ্য একটি উত্তেজনাপূর্ণ সেমিফাইনাল সংঘর্ষের জন্য পথ প্রশস্ত করেছে স্পেনের বিপক্ষে, যা বুধবার রাত ১ টায় মিউনিখে অনুষ্ঠিত হবে।

সূত্র-কালবেলা।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

নিবন্ধনের জন্য আবেদিত
Desing & Developed BY MONTAKIM