বুধবার, ১৭ Jul ২০২৪, ০৭:৫১ অপরাহ্ন

এশিয়ার ধনীরা সিঙ্গাপুরের হোটেল ব্যবসায় বিপুল বিনিয়োগ করছেন

এশিয়ার ধনীরা সিঙ্গাপুরের হোটেল ব্যবসায় বিপুল বিনিয়োগ করছেন

অনলাইন বিজ্ঞাপন

ছবি সংগ্রহীত।

 

করোনা মহামারিতে মুখ থুবড়ে পড়ে পর্যটনখাত। কিন্তু সম্প্রতি ফের ঘুরে দাঁড়াতে শুরু করেছে এই শিল্প। তাই এশিয়ার ধনকুবেরদের নজর এখন সিঙ্গাপুরে। এশিয়ার অন্তত শীর্ষ ১০ ধনী সিঙ্গাপুরের হোটেল ব্যবসায় বিনিয়োগ করছেন। এর মধ্যে রয়েছে হংকংয়ের পানসি হো ও ইন্দোনেশিয়ার সুকান্ত তানোতো। নতুন নতুন হোটেল নির্মাণে তারা প্রায় সাড়ে চার বিলিয়ন মার্কিন ডলার বিনিয়োগ করছেন।

অর্চার্ড রোড হলো সিঙ্গাপুরের প্রধান শপিং স্ট্রিপ। আশপাশের অঞ্চল নিয়ে পরিকল্পনার অংশ হিসেবে সেখানে বেশ কয়েকটি নতুন হোটেলের ঠিকানা হবে। এরই মধ্যে সেখানে ১৯ তলা বিশিষ্ট হোটেল নির্মাণ করছে ইওএল গ্রুপ, যেখানে অতিথিদের জন্য থাকবে অন্তত ২০০ রুম। এর পাশেই আরও একটি হোটেল নির্মাণ করেছে কোম্পানিটি।

চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ইন্দোনেশিয়ার ধনকুবের মোক্তার রিয়াডির ওইউই হিলটন অর্চার্ড পুনরায় চালু হয়েছে। এটির অন্তত ১০৮০টি রুম নতুনভাবে সংস্কার করা হয়েছে।

পাশেই রয়েছে অরেঞ্জ রোড। ইন্দোনেশিয়ার আরেক ধনী বাখতিয়ার করিম তার ট্রেন্ডিং ব্র্যান্ড দ্য স্ট্যান্ডারের অধীনে একটি হোটেল নির্মাণ করেছেন। এতে রুম রয়েছে অন্তত ১৪৩টি।

অর্চার্ড রোড থেকে একটু দূরে কমো মেট্রোপলিটন সিঙ্গাপুর এই মাসে খোলার জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে। ১৫৬ রুমের হোটেল ও শপিং কমপ্লেক্সটি কোমো হোটেলস অ্যান্ড রিসোর্টস তৈরি করেছে।

করোনা মহামারি পরবর্তী স্বাভাবিক পরিস্থিতি থেকে সুবিধা নিতে নানা উদ্যোগ নিচ্ছে সিঙ্গাপুর। জুলাইতে দ্য লায়ন সিটিতে পর্যটকদের সংখ্যা দ্বিগুণ হয়েছে। সিঙ্গাপুরের পর্যটন বোর্ড জানিয়েছে, ভ্রমণকারীদের অধিকাংশই চীনা। সিঙ্গাপুরের সরকার আশা করছে এবছর অন্তত এক কোটি ৪০ লাখ পর্যটক ভ্রমণ করবে, যারা ব্যয় করবে ২১ বিলিয়ন স্থানীয় মুদ্রা।

অন্যদিকে পর্যটকদের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে হোটেল ভাড়াও। চলতি মাসে গড় রুম বাড়া রাতপ্রতি বেড়ে ৮৮০ সিঙ্গাপুরি ডলারে দাঁড়িয়েছে, যা আগের বছরের একই সময়ের চেয়ে ২৭ শতাংশ বেশি।

র্যাফেলস প্লেস কেন্দ্রীয় ব্যবসায়িক জেলার প্রান্তে তানজং পাগারে। ইন্দোনেশিয়ান বিলিয়নিয়ার সুকান্তো তানোটোর প্যাসিফিক ঈগল রিয়েল এস্টেট জুলাই মাসে সেখানে তার প্রথম হোটেল চালু করেন। চায়নাটাউনের কাছে ৩০৪ রুমের মন্ড্রিয়ান ডাক্সটন সিঙ্গাপুর নামের হোটেলটি ৪০০ মিলিয়ন সিঙ্গাপুরি ডলারে নির্মাণ করা হয়।

কেপেল হারবারজুড়ে বিলিয়নেয়ার অশোক কুমার হিরানন্দানির রয়্যাল গ্রুপ আগামী বছর জমকালো উদ্বোধনের জন্য সেন্টোসা দ্বীপে তাদের বিলাসবহুল অল-ভিলা র‌্যাফেলস সেন্টোসা রিসোর্ট ও স্পা সেন্টার নির্মাণ করছে।

এছাড়াও নভেম্বর মাসে বিলিয়নিয়ার কেওয়েক লেং বেং এর সিটি ডেভেলপমেন্টস ও হং লিওং গ্রুপ সিঙ্গাপুরের প্রথম সংস্করণ হোটেল চালু করবে। এতেও রয়েছে বিলাসবহুল সুযোগসুবিধা। এভাবেই সিঙ্গাপুরের হোটেল ব্যবসায় বিলিয়ন বিলিয়ন ডলার বিনিয়োগ করছে এশিয়ার ব্যবসায়ীরা।

সূত্র-জাগোনিউজ


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

নিবন্ধনের জন্য আবেদিত
Desing & Developed BY MONTAKIM