বুধবার, ১৭ Jul ২০২৪, ০৬:২৩ অপরাহ্ন

উখিয়ায় গভীর রাতে বাসা-ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে প্রতিপক্ষের হামলা, নারীসহ আহত-৫

উখিয়ায় গভীর রাতে বাসা-ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে প্রতিপক্ষের হামলা, নারীসহ আহত-৫

অনলাইন বিজ্ঞাপন

বিশেষ প্রতিবেদক:
কক্সবাজারের উখিয়ায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে এক কৃষক পরিবারে হামলা চালিয়েছে প্রতিপক্ষ। হামলায় স্ত্রী, সন্তান, জামাতাসহ রক্তাক্ত জখম হয়েছেন ওই কৃষক। মঙ্গলবার (২২ আগস্ট) দিনগত রাত ১০ দিকে উপজেলার জালিয়াপালং ইউনিয়নের বাইল্যাখালীতে এ হামলার ঘটনা ঘটে। হামলাকারীরা ব্যবসা প্রতিষ্ঠান এবং বসতবাড়িও তছনচ করেছে। এ ঘটনায় এলাকায় উত্তেজনা বিরাজ করছে।
আহত শামসুল আলম (৫৬) জালিয়াপালং ইউনিয়নের বাইল্যাখালীর মৃত ইয়াকুব আলীর ছেলে। তার সাথে স্ত্রী নুর আয়েশা (৩৫), ছেলে জসিম উদ্দিন (২৮), ভাতিজা নুরুল ইসলাম (৪৫) এবং জামাতা জসিম উদ্দিন (২২)ও জখম হন। তাদের হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এ ঘটনায় আহত শামসুল আলম বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দিয়েছেন।
আহত শামসুল আলম জানান, জায়গা-জমি নিয়ে আমার সাথে প্রতিবেশী আবদুল হকের দীর্ঘাদন ধরে বিরোধ চলে আসছিল। এর জের ধরে মঙ্গলবার (২২ আগস্ট) রাতে আব্দুল হকের ছেলে মাদকাসক্ত সুহান, মিজান, আতিক, লুৎফুর রহমানসহ ১০/১৫ জন দেশীয় অস্ত্র ও বন্দুক নিয়ে আমার বাড়িতে এসে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে। এর কারণ জানতে চাওয়া মাত্র সুহান অকস্মাৎ ছুরি দিয়ে আমাকে আঘাত করে। আমি সরে গেলেও বাম চোখের উপরে গুরুতর জখম হই। আমাকে উদ্ধার করতে এসে ছেলে জসিম, মেয়ের জামাই জসিম এবং ভাতিজা নুরুল ইসলামও মারধরের শিকার হয়। খবর পেয়ে স্থানীয় লোকজন এগুলে তারা পালিয়ে যায়। মদ্যপ থাকা মিজান পালানোর সময় তার কোমরে থাকা একটি এলজি পড়ে যায়। পুলিশ এসে অস্ত্রটি উদ্ধার করে।
আহত দোকানী নুরুল ইসলাম বলেন, রাতে শামসু আলমকে মারধর করছে দেখে হামলাকারিদের নিভৃত করতে চেয়েছি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তারা আমার উপরও হামলা চালায়। এক পর্যায়ে আমার ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বসত বাড়িতে ভাংচোর করেছে তারা। স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দিলে ঘটনাস্থলে পুলিশ আসে।
জালিয়াপালংয়ের স্থানীয় ইউপি সদস্য সাহাব উদ্দিন বলেন, খবর পেয়ে আমিও ঘটনাস্থলে যায়।হামলাকারীরা পালিয়ে যাওয়ার সময় একটি অস্ত্রও ফেলে গেছে। পুলিশ এসে তা উদ্ধার করে। আইনগত বিষয়টি পুলিশ দেখছে।
অভিযোগের বিষয়ে জানতে প্রতিপক্ষ ও হামলাকারী হিসেবে অভিযুক্তদের বাবা আবদুল হকের মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে ফোন বন্ধ থাকায় বক্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।
উখিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা শেখ মুহাম্মদ আলী বলেন, ইনানীর চেংছড়িতে একটি হামলার ঘটনায় অস্ত্র উদ্ধার হয়েছে। স্থানীয়দের সাক্ষ্যে অস্ত্রের মালিকের বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে। হামলাকারিদের ধরতে অভিযান চলছে।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

নিবন্ধনের জন্য আবেদিত
Desing & Developed BY MONTAKIM