বুধবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২৩, ০৫:৪৮ অপরাহ্ন

সাগরে ভাসতে থাকা ২১ জেলে জীবিত উদ্ধার

সাগরে ভাসতে থাকা ২১ জেলে জীবিত উদ্ধার

অনলাইন বিজ্ঞাপন

ছবি-উদ্ধার হওয়া ২১ জেলে।

 

গভীর বঙ্গোপসাগরে ইঞ্জিন বিকল হয়ে ভাসতে থাকা মাছ ধরা ট্রলারের ২১ জেলেকে ১৩ দিন পর জীবিত উদ্ধার করেছে বাংলাদেশ কোস্টগার্ড ও নৌবাহিনী।

বুধবার (৩১মে) দুপুর ২টার দিকে কক্সবাজার উপকূল থেকে প্রায় ১৫ নটিক্যাল মাইল দূরে গভীর সাগর থেকে তাদেরকে উদ্ধার করা হয়। বিকাল সাড়ে ৫ টায় এসব জেলেদের আনা হয় কক্সবাজার নুনিয়ারছড়া ঘাটে।

উদ্ধার হওয়া জেলেরা হলেন, ভোলা জেলার মনপুরা থানার উত্তর সাগরছিয়া ৩ নং ইউনিয়নের বাসিন্দা মোকবীর হোসেন, মো: হাসান, মো: সাহাব উদ্দিন, মো: রতন, কবির, মাহি আলম, মো: সুমন, মো: নিরব, মো: জিয়া, কবির, মো: জামাল, আবু তায়েব, সোলেমান, মো: সালা উদ্দিন, মো শাহদাৎ, মো: জুয়েল, মো: মনির,মো: তাহের, মো: ফিরোজ।

সংবাদ সম্মেলনে কোস্টগার্ড টেকনাফ স্টেশনের ইনচার্জ লে. কমান্ডার এইচ এম লুৎফুললাহিল মাজিদ জানিয়েছেন, ভোলা জেলার মনপুরা থেকে গত ১৬ মে এফ বি জুনায়েদ নামক একটি ফিশিং ট্রলার সাগরে মাছ ধরতে যায় ২১ জেলে। ৩ দিন পর ১৯ মে থেকে ট্রলারের বোর্ড ইঞ্জিনের পাখা নষ্ট হয়ে গেলে নিয়ন্ত্রনহীন ভাবে সমুদ্রে ভাসতে থাকে। মাছ ধরার ট্রলারটি ভাসতে ভাসতে ৩০’মে মোবাইল নেটওয়ার্কের আওতায় আসলে জেলেরা উদ্ধার সহায়তা চেয়ে কোস্টগার্ড ও নৌবাহিনীকে অবগত করে। এসময় গভীর সমূদ্রে নিজেদের অবস্থান সম্পর্কে তথ্য দিতে পারেনি জেলেরা। খবর পেয়ে নৌবাহিনী, কোস্ট গার্ড স্টেশন কক্সবাজার ও কোস্ট গার্ডের নিয়মিত টহল অপারেশন সুরক্ষায় নিয়োজিত বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড জাহাজ সবুজ বাংলা এর অধিনায়ক লে. কমান্ডার আব্দুল্লাহ্-আল-মামুনের নেতৃত্বে সমুদ্রে উদ্ধার অভিযান পরিচালনা করা হয়। বুধবার দুপুরে মাছ ধরার ট্রলার সহ ২১ জন জেলেকে গভীর সমুদ্রে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে কোস্ট গার্ড। এসময় জেলেদের প্রয়োজনীয় প্রাথমিক চিকিৎসা এবং খাবার সরবরাহ করা হয়। জেলেরা সকলেই ভোলা জেলার মনপুরা থানার বাসিন্দা।

তিনি বলেন, পরবর্তীতে মাছ ধরার ট্রলারটি উদ্ধারের পর ট্রলারটির মালিকপক্ষের সাথে যোগাযোগ করা হয় এবং উদ্ধারকৃত জেলেদের মালিকপক্ষের নিকট হস্তান্তর করা হয়।

জেলে হান্নান বলেন, সাগরে যাওয়ার তিন দিনের মধ্যে পাখা নষ্ট হয়ে পড়ে। ফলে আমরা ফিরতে পারি নি। নিয়ন্ত্রণহীনভাবে ভাসতে ভাসতে ১৩ দিন পর নেটওয়ার্কের মধ্যে আসলে উদ্ধারের সহযোগিতা চাইলে কোস্টগার্ড আমাদের উদ্ধার করে। এসময় আমাদের খাদ্য শেষ হয়ে যায়। একবেলা খেয়ে দুই বেলা না খেয়ে কোন রকম জীবন বাঁচিয়েছি। শাহদাৎ ও নিরব নামে দুইজন অসুস্থ হয়ে পড়ে। আল্লাহ আমাদলর রক্ষা করেছে এটিই বেশি।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

নিবন্ধনের জন্য আবেদিত
Desing & Developed BY MONTAKIM