রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২:২৮ পূর্বাহ্ন

নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন মেয়রপ্রার্থী সরওয়ার

নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন মেয়রপ্রার্থী সরওয়ার

অনলাইন বিজ্ঞাপন

ফাইল ছবি সরওয়ার কামাল।
বিশেষ প্রতিবেদক:
ত্রাসের রাজত্ব সৃষ্টি হতে পারে, তার সঙ্গে কাজ করা কর্মীদের চিহ্নিত করে হুমকি প্রদান, নির্বাচন কমিশনের ব্যর্থতা, সুষ্ঠু নির্বাচনের আশঙ্কাসহ নানা অভিযোগ এনে ‘কর্মী-সমর্থকদের বাঁচাতে’ কক্সবাজার পৌরসভার নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন সম্মিলিত নাগরিক ফোরামের (জামায়াত সমর্থিত) মেয়র প্রার্থী সরওয়া কামাল।
বৃহস্পতিবার (২৫ মে) দুপুরে নিজ বাস ভবনে সংবাদ সম্মেলন ডেকে তিনি এ ঘোষণা দেন।
তার মতে, প্রার্থীদের আচরণবিধি মানাতে নির্বাচন কমিশনের ব্যর্থতা, সুষ্ঠু নির্বাচনের আশঙ্কা ও কালো টাকার ছড়াছড়ির চলছে।
সরওয়ার কামাল বলেন, মনোনয়নপত্র জমাদানের পর থেকে প্রার্থীরা আচরণবিধে লংঘন করে প্রচারণা চালাচ্ছেন। আমার সঙ্গে যেসব কর্মী সমর্থক কাজ করছেন তাদেরকে চিহ্নিত করে হুমকি প্রদান করা হচ্ছে। ত্রাসের রাজত্ব সৃষ্টি করা হচ্ছে। এমতাবস্থায় আমার কর্মী সমর্থকদের নির্বাচন পরিচালনায় জীবন ঝুঁকি আশঙ্কা করছি। আমি তাদের কথা চিন্তা করে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি।
মেয়র প্রার্থী সরওয়ার বলেন, ইভিএমে ভোট গ্রহণ নিয়ে সাধারণ মানুষের প্রচুর সন্দেহ এবং প্রশ্ন রয়েছে। এ পর্যন্ত ইভিএমের কোন নির্বাচন জনগণকে সন্তুষ্ট করতে পারেনি।
এছাড়া বিরোধী দলসমূহ বর্তমান সরকারের অধীনে কোন নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। সবকিছু বিবেচনায় রেখে পৌর নির্বাচন থেকে আমি সরে দাঁড়ালাম। যারা আমার সঙ্গে নির্বাচনী প্রচারণায় এ পর্যন্ত সময় দিয়েছেন, ত্যাগ স্বীকার করেছেন সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি।
পৌরবাসীর উদ্দেশ্যে মেয়র প্রার্থী সরওয়ার কামাল বলেন, অতীতে যে কোন সময়, যে কোন প্রয়োজনে আপনাদের পাশে ছিলাম। ভবিষ্যতেও সুখে-দুঃখে থাকবো।
প্রসঙ্গত, সরওয়ার কামাল একসময় জামায়াতের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। তবে দীর্ঘদিন প্রকাশ্যে ছিলেন না। তারপরও জামায়াত সমর্থিত হয়ে একাধিক বার নির্বাচনের প্রার্থী হয়েছিলেন। দীর্ঘদিন ভারপ্রাপ্ত মেয়রের দায়িত্ব পালনের পর গেল বারের আগের বার মেয়রও নির্বাচিত হয়েছিলেন। কিন্তু রাষ্ট্রবিরোধী মামলার আসামি হয়ে বহিষ্কার হন তিনি।
জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং কর্মকর্তা এসএম শাহাদাত হোসেন জানান, ঘোষিত তফসিল অনুযায়ী মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ সময় ২৫ মে এবং প্রতীক বরাদ্দ ২৬ মে। ভোটগ্রহণ হবে ১২ জুন। কক্সবাজার পৌরসভার ১২টি ওয়ার্ডের বর্তমান ভোটার সংখ্যা ৯৪ হাজার ৮০২ জন। যার মধ্যে পুরুষ ভোটার ৪৯ হাজার ৮৭৯ জন ও নারী ভোটার ৪৪ হাজার ৯২৩ জন।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

নিবন্ধনের জন্য আবেদিত
Desing & Developed BY MONTAKIM