বাংলাদেশ, , রোববার, ২৭ নভেম্বর ২০২২

আইএমএফ এর পর এবার বিশ্বব্যাংক

আলোকিত কক্সবাজার ।।  সংবাদটি প্রকাশিত হয়ঃ ২০২২-১১-১২ ১১:০১:৩৭  

 

 

দেশে চলমান অর্থনৈতিক সংকটে শুধু আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) ঋণ বড় কোনো স্বস্তি দেবে বলে মনে করছেন না অর্থনীতিবিদরা। বাজেট সহায়তা হিসেবে অন্য উন্নয়ন সহযোগীদের কাছ থেকেও ঋণ নিতে হবে বলে মনে করছেন কোনো কোনো বিশ্লেষক। সরকার অবশ্য আগেই আইএমএফসহ চারটি উন্নয়ন সহযোগীর কাছে ৭০০ কোটি ডলার চেয়েছে। আইএমএফের কাছ থেকে ৪৫০ কোটি ডলার ঋণ পেতে এরই মধ্যে সমঝোতায় পৌঁছেছে বাংলাদেশ।

আইএমএফের প্রতিনিধিদল ঢাকা থেকে চলে যাওয়ার দুই দিন পর আজ শনিবার তিন দিনের সফরে ঢাকায় আসছেন বিশ্বব্যাংকের দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্ট মার্টিন রাইসার। তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামালসহ সরকারের অন্য ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সঙ্গে সাক্ষাত্ করবেন। গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন সংস্কার নিয়েও আলোচনা করবেন তিনি, যা অর্থনীতির চলমান চাপ সামলাতে সহায়তার পাশাপাশি বিদেশি অন্যান্য সংস্থার কাছ থেকে অর্থায়ন পাওয়ার ক্ষেত্রে সুযোগ বাড়াবে বলে মনে করা হচ্ছে।

জানতে চাইলে সাউথ এশিয়ান নেটওয়ার্ক অন ইকোনমিক মডেলিংয়ের (সানেম) নির্বাহী পরিচালক সেলিম রায়হান কালের কণ্ঠকে বলেন, ‘আইএমএফের ঋণ চার বছর ধরে সাত কিস্তিতে পাওয়া যাবে। প্রথম কিস্তিতে পাওয়া যাবে সাড়ে ৪০ কোটি ডলার। এই অর্থে আমাদের সংকটের সমাধান হবে না। তবে গুরুত্বপূর্ণ হলো, এই ঋণের জন্য যে অর্থনৈতিক সংস্কার হবে সেটি। এটি বিশ্বব্যাংক, এশিয়ান ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকের (এডিবি) মতো আন্তর্জাতিক ঋণদাতা সংস্থা ইতিবাচক বার্তা দেবে। এখন সেই সুযোগটি কাজে লাগিয়ে বিশ্বব্যাংক, এডিবিসহ অন্যান্য সংস্থা থেকে ঋণ পাওয়ার চেষ্টা করতে হবে। ’

বাজেট সহায়তা চেয়েছে সরকার

উন্নয়ন সহযোগীদের কাছ থেকে প্রকল্প সহায়তার পাশাপাশি এখন বাজেট সহায়তা পেতেই বেশি আগ্রহী সরকার। এর সুবিধা হলো, যেকোনো খাতে অর্থ খরচ করা যায়, পাওয়া যায় নগদ ডলার। আর এ জন্যই আইএমএফ, বিশ্বব্যাংক, এডিবি ও জাইকার কাছ থেকে সরকার সব মিলিয়ে অন্তত ৭০০ কোটি ডলার চেয়েছে।

এর মধ্যে চলতি বছর বাজেট সহায়তায় ৫০ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে এডিবি। এ ঋণ মিলবে ১৫ বছরের জন্য। সম্প্রতি পরিকল্পনা মন্ত্রীর সঙ্গে বৈঠক করে এমনটা জানান এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর এডিমন গিন্টিং। বৈঠক শেষে এডিবির কান্ট্রি ডিরেক্টর জানান, দুই শর্তে ৫০ কোটি ডলার ঋণ সহায়তা দেওয়া হচ্ছে বাংলাদেশকে। গেল দুই অর্থবছরে বাংলাদেশকে প্রায় ১০০ কোটি ডলার বাজেট সহায়তা দিয়েছে এডিবি।

শর্ত প্রসঙ্গে পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, শর্ত কী হবে বা বাংলাদেশের পক্ষে কতটুকু ইতিবাচক হবে, সেটা যাচাই-বাছাই করা হবে।

অতীতে দেখা গেছে, আন্তর্জাতিক এ সংস্থার ঋণ সহায়তা নিতে বাংলাদেশকে আর্থিক খাতে সংস্কারের শর্ত মানতে হয়েছে। এবারও সে রকম সংস্কারের বিষয়টি আলোচনায় রয়েছে।

বিশ্বব্যাংক ও জাইকার কাছ থেকেও বাজেট সহায়তা নিতে আলোচনা শুরু করেছে অর্থ মন্ত্রণালয়। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলছেন, বৈশ্বিক পরিস্থিতি বিবেচনায় উন্নয়ন সহযোগীদের কাছ থেকে কয়েক বছরের মেয়াদে বড় অঙ্কের ঋণ অনুমোদন করিয়ে রাখতে চায় সরকার। যাতে প্রয়োজনের সময় অর্থ পেতে সমস্যা না হয় এবং রিজার্ভ স্থিতিশীল রাখা সহজ হয়।

এদিকে বাজেট সহায়তা দেওয়ার আগে বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অবস্থা খতিয়ে দেখছে বিশ্বব্যাংক। এর অংশ হিসেবে সম্প্রতি পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শামসুল আলমের সঙ্গে বৈঠক করেছে বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধিদল। এতে নেতৃত্ব দেন সংস্থাটির দক্ষিণ এশিয়ার রিজিওনাল ডিরেক্টর ম্যাথিউ ভারগিস। বৈঠকে উন্নয়ন প্রকল্পের গতি বৃদ্ধি এবং প্রকল্পের কেনাকাটায় স্বচ্ছতা নিশ্চিতের তাগিদ দেওয়া হয়েছে।

বিশ্বব্যাংকের কাছে নতুন করে ১০০ কোটি ডলার এবং আগে প্রতিশ্রুত ২৫ কোটি ডলার বাজেট সহায়তা দ্রুত ছাড় করতে অনুরোধ জানায় সরকার।

এই পরিস্থিতিতে আজ শনিবার তিন দিনের সফরে ঢাকায় আসছেন বিশ্বব্যাংকের দক্ষিণ এশিয়া অঞ্চলের ভাইস প্রেসিডেন্ট মার্টিন রাইসার। গতকাল শুক্রবার বিশ্বব্যাংকের ঢাকা কার্যালয় থেকে দেওয়া এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়, বিশ্বব্যাংকের ভাইস প্রেসিডেন্টের ঢাকা সফরে তাঁর সঙ্গে থাকবেন আব্দুলায়ে সেক। তিনি আগামী ১ জানুয়ারি বাংলাদেশ ও ভুটানের বিশ্বব্যাংকের কান্ট্রি ডিরেক্টর হিসেবে দায়িত্ব নেবেন।

ভাইস প্রেসিডেন্ট রাইসার বলেছেন, তিনি বাংলাদেশ সরকারের সঙ্গে গুরুত্বপূর্ণ বিভিন্ন সংস্কার নিয়ে আলোচনা করবেন, যা বাংলাদেশকে টেকসই এবং অন্তর্ভুক্তিমূলক প্রবৃদ্ধির পথে রাখতে এবং জনগণের জন্য সুযোগ তৈরি করতে সাহায্য করবে।

আব্দুলায়ে সেক বলেন, দারিদ্র্য হ্রাস, জলবায়ু পরিবর্তনের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে অভিযোজন, দুর্যোগ-ঝুঁকির প্রস্তুতির ক্ষেত্রে বাংলাদেশের দারুণ রেকর্ড রয়েছে। বাংলাদেশের সরকার ও জনগণের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করার জন্য তিনি উন্মুখ।

সূত্র-কালেরকণ্ঠ


পূর্ববর্তী - পরবর্তী সংবাদ
                                       
ফেইসবুকে আমরা