বাংলাদেশ, , রোববার, ২৭ নভেম্বর ২০২২

ষড়যন্ত্রের রাজনীতি শুরু করেছে বিএনপি-হানিফ

আলোকিত কক্সবাজার ।।  সংবাদটি প্রকাশিত হয়ঃ ২০২২-১১-১০ ১৭:২৭:২৭  

 

ছবি-বক্তব্য রাখছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ন-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবুল আলম হানিফ।

 

।।ওয়াহিদ রুবেল।।

আওয়ামী লীগের যুগ্ন সাধারণ সম্পাদক মাহবুবু উল আলম হানিফ বলেছেন, বিএনপির মতো আওয়ামী লীগ ষড়যন্ত্রের রাজনীতি বিশ্বাস করেনা বলে দেশের জনগণ আওয়ামী লীগের সাথে আছে। জনগণকে সাথে নিয়ে বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা দেশকে এগিয়ে যাচ্ছেন তখন বিএনপি ষড়যন্ত্রের রাজনীতি শুরু করেছে। তারা সন্ত্রাস ও নৈরাজ্য সৃষ্টি করে ‘টেকবেক’ স্লোগান দিয়ে দেশের অগ্রযাত্রা রুদ্ধ করতে চাই। কিন্তু শেখ হাসিনা যতদিন দেশের নেতৃত্বে থাকবেন কোন অপশক্তি দেশের অগ্রযাত্রা থামাতে পারবেনা।

বৃহস্পতিবার (১০ নভেম্বর) কক্সবাজার পাবলিক লাইব্রেরী হলরুমে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীদের যৌথ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদানকালে তিনি উপরোক্ত কথা বলেছেন।

আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা গৃহহীনদের ঘর দিয়েছেন, ক্ষুধার্তকে অন্ন যুগিয়েছেন, বিধবাকে ভাতা দিয়েছেন, স্বামী পরিত্যক্ত স্ত্রী চলার ব্যবস্থা করেছেন, বৃদ্ধকে বৃদ্ধভাতা দিয়ে পৃথিবীর ইতিহাসে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন। এ জন্য জনগণ আওয়ামী লীগকে ভোট দিয়ে আবারো দেশের রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় বসাবেন। এটি বুঝতে পেরে বিএনপি ষড়যন্ত্রের রাজনীতি শুরু করেছে। যদিও বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে ষড়যন্ত্রের রাজনীতি শুরু করেছিল জিয়া। সে ধারাবাহিকতা এখনো চলমান রয়েছে।

হানিফ বলেন, বিএনপি ক্ষমতায় থাকাকালীন সময়ে সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করতো তারেক জিয়া। সে সময় দেশ পর পর পাঁচবার দুর্নীতিতে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল। দুর্নীতির মামলায় মা/ছেলের সাজাও হয়েছে। অথচ তারা আজ বড় বড় কথা বলছে। তাদের মুখে দুর্নীতি বিরোধী কথা মানায় না।

 

আওয়ামী লীগ নেতা হানিফ বলেন, মানুষ হয়তো রির্জাভ কি বুঝেনা। এ সুযোগে বিএনপি বাংলাদেশ শ্রীলংকা হবে বলে মিথ্যাচার করে যাচ্ছে। অথচ বিদেশি একটি সংস্থা বাংলাদেশের অর্থনীতি নিয়ে গবেষণা করে জানিয়েছেন এভাবে যদি আরো এক বছর চলে তবুও বাংলাদেশ শ্রীলংকা হবে না। বরং ২০৪১ সালে মধ্যমে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ হবে উন্নত রাষ্ট্রে।

সংগ্রামের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগের জন্ম হয়েছে হয়েছে দাবি করে আওয়ামী লীগের এ নেতা বলেন, আওয়ামী লীগকে হুমকি দিয়ে লাভ নেই। আন্দোলন কিভাবে মোকাবেলা করতে হয়ে তা আওয়ামী লীগ জানে। বাসে আগুন দিয়ে, দেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি করে, সরকারি সম্পত্তি জ¦ালিয়ে পুড়িয়ে তারা গণতন্ত্রের কথা বলছে। তারাা হয়তো গণতন্ত্রের সংঙ্গা বুঝে না। আর কোন নৈরাজ্য সৃষ্টি করলে ছাড় দেয়া হবে না।

তিনি বলেন, কক্সবাজারের মানুষ কিছুই চাইনি অথচ প্রধানমন্ত্রী কক্সবাজারকে প্রাচ্যের রাণী করে সাজাচ্ছেন। তার (প্রধানমন্ত্রীর) আগমনের বার্তা ঘরে ঘরে পৌঁছে দিতে দলের নেতাকর্মীদের আহবান জানান তিনি।

কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অ্যাডভোকেট ফরিদুল ইসলামের সভাপতিত্বে এ সময় বক্তব্য রাখেন, আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপন এমপি, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক এড.সিরাজুল মোস্তফা, উপ-প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, সাবেক ছাত্রনেতা ব্যারিস্টার প্রশান্ত ভুষন বড়ুয়া, মাহফুজুল হায়দার চৌধুরী রোটন, জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সালা উদ্দিন আহমেদ সিআইপি, সহ-সভাপতি রেজাউল করিম, যুগ্ন-সাধার সম্পাদক আশেক উল্লাহ রফিক এমপি, এড. রণজিত দাশ, কক্সবাজার সদর-রামু-ঈদগাঁও আসনের সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল, সাবেক সাংসদ আব্দু রহমান বদিসহ জেলা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক বক্তব্য রাখেন।

জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানের বিশেষ বর্ধিত সভা পরিচালনা করেন। এ সময়, যুবলীগ, ছাত্রলীগ, কৃষকলীগ, স্বেচ্ছাসেবকলীগ, মহিলা আওয়ামী লীগ, যুব মহিলা লীগ, শ্রমিকলীগসহ বিভিন্ন সংগঠনের সভাপতি সাধারণ সম্পাদক উপস্থিত ছিলেন।


পূর্ববর্তী - পরবর্তী সংবাদ
                                       
ফেইসবুকে আমরা