বাংলাদেশ, , শনিবার, ১ অক্টোবর ২০২২

কেসিং হারিয়ে গেলে নিজেই খুঁজে নেবে ইয়ারপড

আলোকিত কক্সবাজার ।।  সংবাদটি প্রকাশিত হয়ঃ ২০২২-০৯-১৫ ১৫:৫৭:১২  

বিশ্বে এখন ওয়্যারলেস ডিভাসের জনপ্রিয়তা সবচেয়ে বেশি। সব গ্যাজেট নির্মাতা সংস্থাও ঝুঁকছে সেই দিকে। বিশ্বের অন্যতম স্মার্টফোন আইফোন নির্মাতা প্রতিষ্ঠান আইফোনও একের পর এক গ্যাজেট আনছে বাজারে। কয়েকদিন আগেই অ্যাপল তার দ্বিতীয় প্রজন্মের ইয়ারপড প্রো নিয়ে হাজির হয়েছে।

দারুন সব ফিচারের সঙ্গে এসেছে নতুন প্রজন্মের ইয়ারপডটি। এটিতে এএনসি এবং ট্রান্সপারেন্সি মোডসহ কিছু আপগ্রেড দেওয়া হয়েছে। মিডিয়া প্লেব্যাকের জন্য এতে দেওয়া হয়েছে টাচ কন্ট্রোল। চার্জিং কেসও একাধিক নতুন আপগ্রেড পেয়েছে, যেমন ইন-বিল্ট মিউজিক সিস্টেম।

তবে এই ইয়ারবাডের সবচেয়ে আকর্ষণীয় ফিচারটি হচ্ছে প্রিসিশন ফাইন্ডিং। এখন কেসিং হারিয়ে গেলে খুব সহজেই তা খুঁজে পাওয়া যাবে। এই কাজটি আপনাকে করতে হবে না। ইয়ারপড নিজেই করবে।

কেসিং হারিয়ে যাওয়ার সমস্যায় পড়েননি এমন ইয়ারপড ব্যবহারকারী পাওয়া যাবে হয়তো হাতে গোনা। কেস থেকে ইয়ারবাডগুলো বের করার পর কোথায় রেখেছেন কেসিং তা বেমালুম ভুলে যান অনেকেই।

তারপর সেটি খুঁজে বের করতে কত কিছুই না করতে হয়। তবে এখন সেই সমস্যার সমাধান সঙ্গেই দিয়ে দিচ্ছে অ্যাপল। প্রিসিশন ফাইন্ডিং ফিচারটির মাধ্যমে ইউআই এনাবলড আইফোনের ব্যবহারকারীরা গাইডেড ডিরেকশনে তাদের ভুলে যাওয়া পা ফেলে আসা চার্জিং কেস শনাক্ত করতে পারবেন।

হারিয়ে যাওয়া ডিভাইস খুঁজতে বর্তমানে ম্যাকবুক বা আইফোনে ফাইন্ড মাই অ্যাপ রয়েছে। তবে প্রিসিশন ফাইন্ডিং ফিচারের মাধ্যমে কেসের সঠিক অবস্থান জানা যাবে। এছাড়াও এটিতে দেওয়া হয়েছে আগের প্রজন্মের ইয়ারবাডের তুলনায় বেশি ব্যাটারি লাইফ। ব্যবহারকারীরা এখন অ্যাক্টিভ নয়েজ ক্যান্সেলেশনসহ ৩০ ঘণ্টা পর্যন্ত গান শুনতে পারবেন। যা আগের প্রজন্মের তুলনায় ৬ ঘণ্টা বেশি।

ইয়ারপডস প্রোকে একটি অ্যাপল ওয়াচ চার্জারসহ ম্যাগসেফ চার্জার, কিউআই সার্টিফায়েড চার্জিং ম্যাট বা লাইটনিং কেবল দিয়েও চার্জ করা যাবে। বর্তমানে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে অ্যাপলের স্টোর বা অফিসিয়াল ওয়েবসাইটে পাওয়া যাচ্ছে ইয়ারপডটি। সেখানে দাম থাকছে ২৪৯ ডলার। বাংলাদেশি টাকায় যা ২৫ হাজার ৯০০ টাকা।

সূত্র: সিএনএন, জাগোনিউজ


পূর্ববর্তী - পরবর্তী সংবাদ
                                       
ফেইসবুকে আমরা