বাংলাদেশ, , শনিবার, ১ অক্টোবর ২০২২

সিংহী নদী’র অবস্থা সংকটাপন্ন কক্সবাজারের চকরিয়ার ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারী পার্ক

আলোকিত কক্সবাজার ।।  সংবাদটি প্রকাশিত হয়ঃ ২০২২-০৪-১৫ ০১:২৫:৩৯  

ছবি- অসুস্থ সিংহী নদীকে সেবা দিচ্ছে চিকিৎসকরা ও চট্টগ্রামস্থ বিভাগীয় বন কর্মকর্তার কাছে প্রেরিত পত্র।

কক্সবাজারের চকরিয়ার ডুলাহাজারা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারী পার্কের আবদ্ধ সিংহী নদী গুরুত্বর অসুস্থ। আড়াই মাসে একাধিক বার বিশেষজ্ঞ টিম নিয়ে বোর্ড বসিয়েও সুস্থতার কোন লক্ষ্মণ পাচ্ছেন না পার্ক কর্তৃপক্ষ। নদীর সংকটাপন্ন অবস্থা নিয়ে বেজায় চিন্তিত সংশ্লিষ্টরা। এমনটি জানিয়েছেন পার্কের তত্বাবধায়ক মো. মাজহারুল ইসলাম।

তিনি জানান, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সাফারী পার্কে রক্ষিত আবদ্ধ সিংহী (নদী নামে পরিচিত) গত ২ ফেব্রুয়ারি একই বেষ্টনী সঙ্গী পুরুষ সিংহ (সম্রাট)’র সাথে মারামারি করে। এ সময় পুরুষ সিংহ অপেক্ষাকৃত বেশি আঘাত পায়। এ সময় পার্কে কোন ভেটেরিনারী অফিসার না থাকায় চকরিয়া উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তার পরামর্শক্রমে চিকিৎসা দেয়া হয়। চিকিৎসায় পুরুষ সিংহ সুস্থ হয়ে উঠে। এরপর ১৯ ফেব্রুয়ারি শারীরিক মিলনে গিয়ে সম্রাট-নদী আবারো মারামারিতে জড়িয়ে উভয়ে জখম প্রাপ্ত হয়। এ মারামারিতে সিংহী (নদী) অপেক্ষাকৃত বেশি আঘাত পায়। উভয় সিংহকে ভেটেরিনারী অফিসার ডা. মোস্তাফিজুর রহমানের ভার্চুয়াল পরামর্শ মতে চিকিৎসা দেয়া হয়। সিংহটি সুস্থ হয়ে উঠলে ও নদীর গলার নিচে জখম হয়ে সেখান থেকে পানি ঝরছিল। গত ২২ ও ২৭ ফেব্রুয়ারি পার্কের বর্তমান ভেটেরিনারী অফিসার ডা. হাতেম সাজ্জাত জুলকার নাইন চিকিৎসা দেন

তত্ত্বাবধায়ক আরো জানান, এরপরও সিংহীর গলার নিচ থেকে পানি ঝরা বন্ধ না হওয়ায় ২৮ ফেব্রুয়ারি চট্টগ্রামের ভেটেরিনারি ও এনিমেল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞ ডাক্তার, চকরিয়া উপজেলা প্রানিসম্পদ কর্মকর্তা এবং পার্কের ভেটেরিনার অফিসার হাতেম সাজ্জাত জুলকার নাইনসহ ৫ সদস্যের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক দ্বারা মেডিকেল বোর্ড গঠন করে অসুস্থ নদীকে (সিংহীটিকে) চিকিৎসা সেবা দেয়। কিন্তু এরপরও দিন দিন খাদ্য গ্রহণ কম করতে থাকে এবং মুখ থেকে লালা ঝরা কমেনি। ২৭ মার্চ হতে একেবারে খাবার গ্রহণ বন্ধ করে দেয় নদী। এ সময়ে সিংহীটি সব সময় জিহবা বের করে রাখে এবং লালা ঝরার পরিমানও বেড়ে যাওয়ায় আবারও চট্টগ্রাম ভেটেরিনারি ও এনিমেল সাইন্সেস বিশ্ববিদ্যালয়ের ২ জন বিশেষজ্ঞ ডাক্তার, চকরিয়া উপজেলা প্রানিসম্পদ কর্মকর্তা এবং পার্কের ভেটেরিনারী অফিসারসহ ৪ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড দ্বারা সিংহীটিকে চিকিৎসা সেবা প্রদান অব্যহত রাখা হয়। ঘা পরীক্ষা করে দেখা গেছে সেখানে ব্যাকটেরিয়া ইনফেকশন করেছে।

পার্কের ইনচার্জ মাজহারুল ইসলাম বলেন, রোগের কোন উন্নতি না হয়ে সিংহীটি আরো দুর্বল হয়ে পড়ছে। এরপরও বোর্ডের পুরোনো সিদ্ধান্ত মতে ৭ এপ্রিল চকরিয়া উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা আবারো অসুস্থ সিংহীকে চিকিৎসা দেয়। যা এখনো অব্যহত রাখা হয়েছে। আর পার্ক কর্তৃপক্ষ ভেটেরিনারী অফিসার ও বিশেষজ্ঞ টিমকে প্রয়োজনীয় সকল সাপোর্ট প্রদান করা সত্বেও সিংহীটির শারিরীক কোন উন্নতি না হওয়ায় উদ্বেগ ছড়িয়েছে।

এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় দিক নির্দেশনা চেয়ে গত ৮ এপ্রিল বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগের চট্টগ্রামস্থ বিভাগীয় বন কর্মকর্তার কাছে পত্র পাঠানো হয়েছে। এখনো সিংহীর শারীরিক অবস্থা অপরিবর্তিত বলে উল্লেখ করেন পার্ক তত্ত্বাবধায়ক মো. মাজহারুল ইসলাম।


পূর্ববর্তী - পরবর্তী সংবাদ
                                       
ফেইসবুকে আমরা