বাংলাদেশ, , শনিবার, ১ অক্টোবর ২০২২

কক্সবাজারে স্বাধীনতা কবিতা উৎসব ৩০, ৩১ মার্চ ও ১ এপ্রিল

আলোকিত কক্সবাজার ।।  সংবাদটি প্রকাশিত হয়ঃ ২০২২-০২-২৬ ২২:৫০:৪৮  

ছবি-সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখছেন জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার মোঃ নাছির উদ্দিনসহ অন্যান্যরা।

 

আগামী ৩০, ৩১ মার্চ ও ১ এপ্রিল তিন দিনব্যাপী স্বাধীনতা কবিতা উৎসব ২০২২ এর আনুষ্ঠানকি ঘোষণা উপলক্ষে এক সংবাদ সম্মেলন শনিবার (২৬ ফেব্রæয়ারী) সকালে কক্সবাজার প্রেসক্লাবে অনষ্ঠিত হয়েছে।

স্বাধীনতার সুর্বণজয়ন্তি, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশত বার্ষিকী ও কাজী নজরুল ইসলামের ‘বিদ্রোহী’ কবিতার শতবর্ষ উদযাপনের ত্রিকালসম্মিলন উপলক্ষে এ উৎসব দুইটি ভেন্যুতে হওয়ার কথা জানান উৎসব বাস্তবায়ন কমিটির প্রধান সমন্বয়ক কক্সবাজার সাংবাদিক কোষ প্রণেতা আজাদ মনসুর।

‘মুক্তির মন্দির সোপান তলে’ প্রতিপাদ্যে তিন দিনব্যাপী স্বাধীনতা কবিতা উৎসবের লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন করেন সম্মিলিত নাগরিক ফোরাম ও উৎসব বাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি শিল্পোদ্যোক্তা রেজাউল করিম সিকদার।

এ উৎসবের উদ্বোধনী পর্ব ৩০, ৩১ মার্চ (ঈদগাহ আদর্শ উচ্চ বিদ্যালয়, ঈদগাঁও) ও সমাপনি পর্ব ১ এপ্রিল (হুদা কবিতা মঞ্চ, কক্সবাজার) উৎসবের অনুষ্ঠান সূচি এবং সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন ফোরামের সাধারণ সম্পাদক লেখক ও সাংবাদিক কাফি আনোয়ার।

এসময় কবিতা উৎসবের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার, কক্সবাজার সাহিত্য একাডেমীর সহ সভাপতি ছড়াকার মোঃ নাছির উদ্দিন, ‘নাইয়রী সাম্মান লই যার’খ্যাত কবি কামরুল হাসান। কক্সবাজার সাহিত্য একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক ও উৎসব বাস্তবায়ন কমিটির নিবন্ধন সমন্বয়কারী (কক্সবাজার) কবি রুহুল কাদের বাবুল, ফোরামের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবছার কামাল, সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিষয়ক সম্পাদক এহছান উল্লাহ, ত্রাণ ও পুনঃর্বাসন বিষয়ক সম্পাদক জয়নাল আবেদীন, দপ্তর সম্পাদক গিয়াস উদ্দিন রবীন ও ভোক্তার অধিকার বিষয়ক সম্পাদক আবু হেনাসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

বর্ণিল এ উৎসবে সেমিনার, কবি কণ্ঠে কবিতা পাঠ, হ’লা, পুঁথিপাঠ, আঞলিক বিয়ে সঙ্গীত, ফানুস উড্ডয়নসহ কক্সবাজারের লোকজ সংস্কৃতি দিয়ে সাজানো হয়েছে।

এ উৎসবে বাংলা একাডেমীর মহাপরিচালক কবি মুহম্মদ নুরুল হুদাসহ ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, ময়মনসিংহ, রংপুর, রাঙামাটি, কক্সবাজারের বরেণ্য ও খ্যাতিমান কবি, সাহিত্যিক, লেখক, সাংবাদিক, লোকশিল্পী, সংস্কৃতিকর্মী, রাজনৈতিক অঙ্গনের নেতৃবৃন্দ, সুশীল সমাজের প্রতিনিধি, প্রশাসনের উচ্চপদস্থ ব্যক্তিবর্গসহ দলমতধর্ম নির্বিশেষে বিপুল সংখ্যক কবিতাপ্রেমী সৃজনশীল এবং মননশীল অখংশীজন যোগদান করার কথা জানান আয়োজক কমিটির কর্মকর্তারা।


পূর্ববর্তী - পরবর্তী সংবাদ
                                       
ফেইসবুকে আমরা