বাংলাদেশ, , শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২

সী-পার্ল উদ্বোধন কালে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে পর্যটনখাতকে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার

আলোকিত কক্সবাজার ।।  সংবাদটি প্রকাশিত হয়ঃ ২০১৫-০৯-১৯ ১২:৪১:৫৮  

নিজস্ব প্রতিবেদক॥
Pic Ukhiya 17-09-2015শিল্পমন্ত্রী আমীর হোসেন আমু বলেছেন, উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে পর্যটনখাতকে গুরুত্ব দিচ্ছে সরকার। কক্সবাজারের ইনানীতে নির্মিত দক্ষিণ এশিয়ার বৃহৎ পাঁচ তারকামানের সী-পাল হোটেলটি পর্যটন শহর কক্সবাজারের আমূল পরিবর্তন এনে দেবে।  তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার পর্যটন শিল্পের উপর গুরুত্ব দিয়ে কক্সবাজার-টেকনাফ ৫৬ কিলোমিটার মেরিণ ড্রাইভের কাজ দ্রুত বাস্তবায়নের চেষ্টা চলছে। এছাড়াও চট্টগ্রাম থেকে উখিয়া পর্যন্ত রেল লাইন স্থাপন, ১২হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন ও সাবরাংয়ে এক্সক্লুসিভ টুরিজম, আর্ন্তজাতিমানের বিমানবন্ধর, মৎস্য গবেষণা কেন্দ্র নির্মাণ, মেডিকেল কলেজ নির্মাণ, আর্ন্তজাতিকমানের ক্রিকেট স্টেডিয়াম নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। কক্সবাজার ইনানীতে গড়ে উঠা আর্ন্তজাতিক মানের ৫ তারাকা হোটেল “রয়েল টিউলিপ সী-পার্ল রির্সোট” নি:সন্দহে কক্সবাজারকে বিশ্বের দরবারে পরিচিত করে তুলবে বলে মন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় কক্সবাজারের ইনানীতে পাঁচ তারকামানের হোটেল “রয়েল সী-পার্ল বীচ রিসোর্ট এন্ড স্পা” উদ্ধোনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্য প্রদানকালে তিনি এসব কথা বলেছেন।
হোটেল’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক আমিনুল হক শামিমের সভাপতিত্বে অনুষ্টিত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পাট ও বস্ত্র প্রতিমন্ত্রী মীর্জা আজম ও বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন  মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির চেয়ারম্যান (অব:) লে: কর্ণেল মো: ফারুক খাঁন। অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোজাম্মেল হক খাঁন, পাট ও বস্ত্র মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: ফরিদ উদ্দিন আহমদ চৌধুরী, বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক নাঈম নিজাম, প্রাইম ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহমেদ কামাল খাঁন চৌধুরী, বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আক্তারুজ্জমান খাঁন কবির, সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল, সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি। বক্তব্য রাখেন ভারতের গোল্ডেন টিউলেপের ম্যানেজিং ডিরেক্টর এবং দক্ষিণ এশিয়ার ভাইস প্রেসিডেন্ট ভিমল জে সিং, কক্সবাজারের (ভারপ্রাপ্ত) জেলা প্রশাসক অনুপম সাহা, পুলিশ সুপার শ্যামল কুমার নাথ, হোটেল সী-পার্লের সি.ই.ও এইচ.এম মকবুল হোসেন।
প্রধান অতিথি বলেন, ২০২১ সালের মধ্যে শিল্প সমৃদ্ধ আয়ের এবং ২০৪১ সাল নাগাদ উন্নত ও সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণ বর্তমান সরকারের অন্যতম লক্ষ্য। এ লক্ষ্য অর্জনে সরকার পর্যটন শিল্প বিকাশের প্রতি বিশেষ গরুত্ব দিচ্ছি। তাই জাতীয় শিল্পনীতি ২০১০ এ পর্যটন শিল্পকে অগ্রাধিকার শিল্প খাতের তালিকায় অর্ন্তভূক্ত করা হয়েছে। তিনি আরো বলেন, পর্যটন ব্যবসাকে এখন শিল্প হিসাবে ঘোষনা করা হয়েছে। বর্তমান সরকার কক্সবাজারে আর্ন্তজাতিক মানের পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলার লক্ষ্যে মহা পরিকল্পনা গ্রহন করেছে। টেকসই পর্যটন শিল্প খাত গড়ে তুলতে ২০১৫ সালের জাতীয় শিল্পনীতিতেও এধরনের নীতি সহয়তা প্রধানের বিষয়টি নিশ্চিত করা হবে।
সভাপতির বক্তব্য প্রদানকালে হোটেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বলেন, ৪৯৩ রুম বিশিষ্ট রয়েল টিউলিপ সী পার্ল রীচ রিসোর্ট এন্ড স্পা দক্ষিণ এশিয়ার সর্ব বৃহৎ হোটেল। ১৫ একরের বেশি জমির উপর পাঁচ তারকা মানের হোটেলটিতে রয়েছে অত্যাধুনিক ফিটনেস সেন্টার, ২টি বৃহৎ সুইমিং পুল, এমপিথিয়েটার, ৩ডি গলফ এবং উন্নত ভিডিও গেমসসহ ইনডোর ও আউটডোর বিনোদনের ব্যবস্থা। এছাড়া রয়েছে ডেসটিনেশন স্পা যেখানে থাকরেব ট্রাাডিশনাল থাই স্পা এবং নানা প্রকারের অ্যারোমা থেরাপি আইসক্রিম পার্লারসহ কন্ডিন্টোল, প্যান এশিয়ান ইতালিয়ান বাংলা সী ফুডসহ ৮টি ভিন্ন স্বাদেও রেস্টুরেন্ট। রয়েছে বাংলাদেশের একমাত্র সানকিন বারসহ ইন্টারন্যাশনাল বার এবং লবি জুস বার ও ক্যাফে।
তিনি বলেন, এখানে নির্মণাধীণ রয়েছে কক্সবাজারের সর্বপ্রথম এবং বাংলাদেশের সর্বাধুনিক ওযাটার পার্ক। রয়েছে প্যারাসিলিং, ডিপ সী ফিশিং হিল ট্রাকিং ইত্যাদি। এছাড়া বাংরাদেশের মানুষ যারা প্রতি বছর বিদেশে ৗল্পু একবার হলেও যেতে চায় তাদের জন্য সর্ব প্রথম ব্যাকেশন এক্সচেঞ্চ সুবধা নেয়ে একটি ভিন্ন ধর্মী ক্লাব“ বেঙ্গল ভ্যাকেশন ক্লাব” প্রতিষ্টা হয়েছে। এ ক্লাবের মেম্বারগণ “ রয়েল টিউলিপ সি পার্ল বীচ রিসোর্ট এন্ড স্পা” এ ৭ দিন বিনা মূল্যে থাকাসহ ৭৫টি দেশের প্রায় ২৫০০ এর বেশি পাঁচ তারকামানের হোটেলে এক্সচেঞ্চ ফি: মাধ্যমে ৭ রাত উপভোগ করতে পারবেন।
উক্ত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ময়মনসিংহ পৌর মেয়র ইকরামুল হক টিটু, কক্সবাজার জেলা পরিষদ প্রশাসক মোস্তাক আহমদ চৌধুরী, কক্সবাজার জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এডভোকেট একে.এম আহমদ হোছাইন, সাধারণ সম্পাদক সালাহ উদ্দিন আহমদ, কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি লিয়াকত সিকদার, কক্সবাজার পৌর আওয়ামীলীগের সভাপতি মজিবুর রহমান, উখিয়া আওয়ামীলীগের সভাপতি অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী প্রমূখ।


পূর্ববর্তী - পরবর্তী সংবাদ
                                       
ফেইসবুকে আমরা