বাংলাদেশ, , শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩

ঢাকা ব্যাংক কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে গ্রাহকের টাকা আত্মসাদের অভিযোগ

আলোকিত কক্সবাজার ।।  সংবাদটি প্রকাশিত হয়ঃ ২০১৫-১০-১৪ ১৯:২১:২১  

নিজস্ব প্রতিবেদক॥

ঢাকা ব্যাংক কক্সবাজার শাখার ম্যানেজার ও কর্মকর্তারা যোগসাজসে এক মহিলা গ্রাহকহের ১লক্ষ ৫৫হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। চলতি বছরের আগস্ট মাসে তার একাউন্ট থেকে এসব টাকা উত্তোলন করে আত্মসাৎ করেছে বলে বলে দাবি করেছেন ভোক্তভূগী মহিলা(নাম গোপন করা হলো)। বিষয়টি নিয়ে কয়েকবার ব্যাংকের কর্মকর্তাদের সাথে কথা বলেও কোন প্রতিকার না হওয়ায় পরিবারের চরম ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি। এমনকি প্রবাসে বসবাসরত স্বামীর সাথে নানা সমস্যা দেখা দিয়েছে বলে জানান। তবে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন ব্যাংক ম্যানেজার সিকদার মো: সুলতান গিয়াস উদ্দিন।
কক্সবাজার সদর উপজেলার বাংলা বাজার এলাকার বাসিন্দা ভোক্তভূগী মহিলা বলেন, নিরাপদে রাখার জন্য আমি ঢাকা ব্যাংকে টাকা রেখেছিলাম। এখন সে ব্যাংক থেকে যদি টাকা আত্মসাদ হয়ে যায় তবে সে ব্যাংকে আর টাকা রাখা যাবে না। তিনি বলেন, এ নিয়ে আমার সংসারে নানা সমস্যা দেখা দিয়েছে। বর্তমানে তিনি উক্ত একাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছেন বলে জানিয়েছেন।
গতকাল বুধবার ভোক্তভূগী মহিলা ও তার পরিবারের সদস্যরা ম্যানেজারের কাছে গেলে রাতে সমযোতার বৈঠক হওয়ার হতে পারে বলে জানিয়েছেন ভোক্তভূগী মহিলা।
তিনি জানিয়েছেন, চলতি মাসের ১৬ সেপ্টম্বর নিজের একাউন্টে ১৫ হাজার টাকা জমা দিতে ব্যাংকে যান তিনি। এ সময় তিনি

একাউন্টের(নং০৮১২০০২৬৩৪৪)স্টেটমেন্ট জানতে চাইলে তার একাউন্ট থেকে ১ লক্ষ ৫৫ হাজার টাকা উত্তোলনের কথা জানতে পারেন। বিষয়টি জানতে পেরে দ্রুত ব্যাংক ম্যানেজারকে অবহিত করলে ম্যানেজার তাকে ১৭ সেপ্টম্বর আসতে বলেন। এ দিন সকালে ভোক্তভূগী মহিলা তার ছোট ভাইকে নিয়ে ব্যাংকে আসলে বিষয়টি সুরহার কথা বলে মহিলার কাছে কৌশলে বিভিন্ন ফরম এবং চেক বন্ধের কথা বলে স্বাক্ষর নেন ব্যাংকের অপর কর্মকর্তা তৌফিক কবির। এসময় ব্যাংকের সিসি ক্যামরায় ১৭ আগস্টের ফোটেজ দেখে টাকা উত্তোলনকারী ব্যক্তিকে সনাক্ত করেন ব্যাংক কতৃপক্ষ। মহিলার অভিযোগ টাকা উত্তোলনকারী ব্যাক্তিকে তিনি চিনে না। এমনকি চেকের (নং৪৪৮০০৩০) স্বাক্ষরের সাথে তার সাক্ষরের কোন মিল নেই। তারপরও ব্যাংক থেকে কিভাবে টাকা উত্তোলন করলো তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। ভোক্তভূগী মহিলার অভিযোগ আমার একাউন্ট থেকে দেড় লক্ষের বেশি টাকা উত্তোলন করছে তা আমি জানি না। এমনকি ব্যাংক কতৃপক্ষ তাকে কোন ধরনের অবহিত করেনি। জানা যায়, সাইফুল নামে এক ব্যক্তি’র নাম উত্তোলনকৃত চেকে রয়েছে।
মাহবুবুর রহমান নামে মহিলার এক আত্মীয় জানান, গ্রাহককে না জানিয়ে এত টাকা তুলে নিয়ে গেল এটি কর্মকর্তাদের যোগসাজস ছাড়া সম্ভব না। তারা দ্রুত টাকা ফেরত দাবি করেছেন।
জানতে চাওয়া হলে ব্যাংক ম্যানেজার সিকদার মোহাম্মদ গিয়াস উদ্দিন টাকা আত্মসাদের বিষয়টি কৌশলে এড়িয়ে যান। এমনকি তার কাছে এ ধরনের কোন অভিযোগ আসেনি দাবি করেছেন তিনি। তবে কথা বলার এক ফাঁকে তিনি এ প্রতিবেদককে বিষয়টি নিয়ে কক্সবাজারের এক সংবাদকর্মীর সাথে কথা বলার অনুরোধ জানান তিনি।


পূর্ববর্তী - পরবর্তী সংবাদ
                                       
ফেইসবুকে আমরা