বাংলাদেশ, , শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২

সেন্টমার্টিন থেকে ফিরেছেন ৪২ পর্যটক ঃ আটকে আছে আরো অর্ধশত

আলোকিত কক্সবাজার ।।  সংবাদটি প্রকাশিত হয়ঃ ২০১৫-১০-০৯ ২১:২২:৪৩  

নিজস্ব প্রতিবেদক॥
প্রবাল দ্বীপ সেন্টমার্টিনে আটকেপড়া পর্যটকদের মধ্যে ৪২ জন শুক্রবার বিকালে ঝুঁকি নিয়ে তিনটি মাছ ধরার ট্রলারে করে টেকনাফ ফিরে এসেছেন। একজন বিদেশি নারী পযর্টকসহ বাকি আরও অর্ধশতাধিক পর্যটক সেন্টমার্টিন দ্বীপের বিভিন্ন হোটেল ও কটেজে অবস্থান করছেন।
লঘুচাপের প্রভাবে বঙ্গোপসাগর প্রচন্ড উত্তাল হয়ে পড়ায় দুদিন ধরে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌপথে পর্যটকবাহী জাহাজ চলাচল বন্ধ রয়েছে।
টেকনাফ কায়ুকখালীয়া ঘাটের ইজারাদারের উসুল আদায়কারী মো. শামসুল আলম জানান, শুক্রবার বিকেল সাড়ে তিনটা পর্যন্ত সেন্ট মার্টিন থেকে এফবি রাফিউলে ৩০; এফবি শহীদ ও এফবি রাসেলের ছয়জন করে সর্বমোট ৪২জন পযর্টকসহ তিনটি ট্রলার এসেছে।
পর্যটকবাহী জাহাজ কেয়ারি সিন্দাবাদের টেকনাফের ব্যবস্থাপক শাহ আলম জানান, ৩ সতর্ক সংকেত শুক্রবার সাড়ে ১০টার দিকে কেটে গেলেও সাগর উত্তাল থাকায় সেন্ট মার্টিনে আটকেপড়া পযর্টকদের ফিরিয়ে আনতে যাওয়া সম্ভব হয়নি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে শনিবার আটকেপড়া বাকি পর্যটকদের ফিরিয়ে আনা হবে।
সেন্ট মার্টিন পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মো. আব্দুল কাইয়ুম জানান, সাগর উত্তাল থাকলেও পর্যটকেরা নিজেদের উদ্যোগে ঝুঁকি নিয়ে তিনটি ট্রলারে করে ৪২জন পযর্টক টেকনাফ ফিরে গেছেন। একজন বিদেশি নারী পযর্টকসহ বাকি আরও পর্যটক সেন্ট মার্টিন দ্বীপের বিভিন্ন হোটেল ও কটেজে অবস্থান করছেন। জাহাজ কর্তৃপক্ষে সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে  শনিবার টেকনাফ থেকে জাহাজ সেন্ট মার্টিন এসে আটকেপড়া পযর্টকদের টেকনাফে ফিরিয়ে নেবেন।
সেন্ট মার্টিন ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান নুরুল আমিন জানান, বেলা সাড়ে ১১টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত তিনটি ট্রলারে করে স্থানীয় বাসিন্দা সহ ৬৫জনের মতো যাত্রী নিয়ে টেকনাফে গেছে। এতে ৪২জন পযর্টক ছিল।


পূর্ববর্তী - পরবর্তী সংবাদ
                                       
ফেইসবুকে আমরা