সোমবার, ২০ মে ২০২৪, ০৩:৩৩ অপরাহ্ন

আটকের ৭ ঘন্টার পর বন্দুকযুদ্ধে যুবক নিহত

আটকের ৭ ঘন্টার পর বন্দুকযুদ্ধে যুবক নিহত

অনলাইন বিজ্ঞাপন

কক্সবাজার ২৪ এপ্রিল ১৯

কক্সবাজারের টেকনাফে আটকের ৭ ঘণ্টার মাথায় কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে বারোটার দিকে বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। নিহতের নাম দিল মোহাম্মদ দিলু (৩৬)।

তিনি টেকনাফ সদর ইউনিয়নের গোদারবিল এলাকার মৃত মকবুল আহমদ প্রকাশ পুতুর ছেলে।

টেকনাফ থানা পুলিশের ওসি প্রদীপ কুমার দাশ ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন নিহত দিলু তালিকাভূক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী।তার বিরুদ্ধে মাদকসহ ৯টি মামলা রয়েছে।

এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ৬টি এলজি, ১৩ রাউন্ড কার্তুজ ও ৭ হাজার ইয়াবা জব্দ করা হয়েছে। বন্দুকযুদ্ধে এক এসআই ও এক কনস্টবল আহত হয়েছেন।

তবে পরিবারের দাবি দিলু ইয়াবা ব্যবসার সাথে জড়িত ছিলেন না। তাকে ষড়যন্ত্র করে মেরে ফেলা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে তাকে বাড়ি থেকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

ওসি প্রদীপ কুমার দাশ জানান, মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫টায় এএসআই সঞ্জীব দত্ত সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ৯ মামলার পলাতক আসামি এবং তালিকাভুক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী দিল মোহাম্মদ দিলুকে আটক করেন। জিজ্ঞাসাবাদে দিলু জানায় গত কয়েক দিন আগের একটি ইয়াবার চালান এবং সন্ত্রাসী কাজে ব্যবহৃত অস্ত্র টেকনাফ থানাধীন সদর ইউপির মেরিন ড্রাইভ রোডের পরিত্যক্ত মাছের হ্যাচারির পেছনে জঙ্গলে লুকিয়ে রাখা হয়েছে।

এসব উদ্ধারে দিলুকে নিয়ে রাত সাড়ে ১২টায় অতিরিক্ত পুলিশসহ ঘটনাস্থালে গেলে দিলুর সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি করে। তাদের ছোড়া গুলিতে এসআই বাবুল এবং কনস্টেবল (কং-৭৯১) ইব্রাহীম আহত হন। আত্মরক্ষায় পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। উভয় পক্ষের গোলাগুলিতে দিলু গুলিবিদ্ধ হয়।

ওসি আরও জানান, পরবর্তীতে ঘটনাস্থল তল্লাশি করে ৬টি এলজি বন্দুক, ১৩ রাউন্ড কার্তুজ ও ৭ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। গুলিবিদ্ধ দিলু ও আহত পুলিশ সদস্যদের হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দিলুকে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠান।

বুধবার ভোরে কক্সবাজার সদর হাসপাতালে আনা হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক দিলুকে মৃত ঘোষণা করেন। আহত পুলিশ সদস্যদের প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। এ ঘটনায় পৃথক মামলা হচ্ছে বলে উল্লেখ করেন ওসি।


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

নিবন্ধনের জন্য আবেদিত
Desing & Developed BY MONTAKIM