বাংলাদেশ, , শনিবার, ৩ ডিসেম্বর ২০২২

টেকনাফে বিজিবি ও পুলিশের পৃথক অভিযানে মাদকদ্রব্য ও অস্ত্রসহ আটক ৭

আলোকিত কক্সবাজার ।।  সংবাদটি প্রকাশিত হয়ঃ ২০১৫-১০-০৫ ১৬:০০:১২  

নিজস্ব প্রতিবেদক॥
কক্সবাজারের সীমান্তবর্তী উপজেলা টেকনাফে পুলিশ ও বিজিবি পৃথক অভিযান চালিয়ে মাদকদ্রব্য ও অস্ত্রসহ ৭ জনকে আটক করেছে। রোববার দিনগত রাত ও আজ সোমবার ভোরে তাদের আটক করা হয়। বিজিবির অভিযানে ২০ হাজার ইয়াবাসহ আটক হয়েছে ৩ জন। অপরদিকে টেকনাফ থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ইয়াবা ও অস্ত্রসহ ২ জনকে আটক করেছে। এছাড়াও ৬ কেজি মারিজুয়ানাসহ ২ ব্যক্তিকে আটক করেছে পুলিশ।
বিজিবি সূত্র জানিয়েছে, রোববার রাত পৌনে ১০টার দিকে মিয়ানমার থেকে ইয়াবার চালান আসার সংবাদের ভিত্তিতে টেকনাফ ৪২বিজিবি ব্যাটেলিয়নের সদর বিওপির নায়েক সুবেদার শামসুল আলমের নেতৃত্বে একটি টহল দল ৪নং স্লুইচ গেইট এলাকায় টহলে যায়। এ সময় ইয়াবার চালান নিয়ে বেড়িবাঁধ অতিক্রম করার সময় বিজিবি টহল দল ধাওয়া করে সাবরাং ইউনিয়নের ঝিনাপাড়ার আনু মিয়ার পুত্র মোঃ সাইফুল ইসলাম (২২), খলিলুর রহমানের পুত্র মোঃ শাহ আলম (২৫) ও মিয়ানমারের আকিয়াব জেলার মংডু থানার খাইংখালীর জুবায়ের হোসেনের পুত্র রিয়াজ হোসেনকে (২২)। এসময় ইয়াবা পাচারের কাজে ব্যবহৃত কাঠের নৌকাটিও জব্দ করা হয়। তাদের কাছ থেকে ২০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য প্রায় ৬০ লাখ টাকা বলে জানিয়েছে বিজিবি। আটককৃতদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা দায়ের করে টেকনাফ মডেল থানার হস্তান্তর করা হয়েছে বলে টেকনাফের বিজিবি ৪২ ব্যাটালিয়নের ভারপ্রাপ্ত উপাধিনায়ক আজহারুল আলম জানান।

Teknaf Pic-(B)-05-10-15এদিকে রাত সোয়া ১০টারদিকে টেকনাফ মডেল থানার এএসআই আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সাবরাং ইউনিয়নের নয়াপাড়ায় জনৈক বশিরের ভাড়াবাসায় অভিযান চালিয়ে একটি বিদেশী তৈরী পিস্তল,২ রাউন্ড বুলেট ও ১০হাজার ইয়াবা বড়িসহ মৃত কালা মিয়ার পুত্র বশির ড্রাইভার (৪৭) ও অনিল কান্তির পুত্র হরি প্রসাদ (৩৫) কে আটক করে। আটককৃতরা ছাড়াও এই ঘটনায় জড়িত অপর একজনকে পলাতক আসামী করে পৃথক মামলা দায়েরের প্রক্রিয়া চলছে বলে টেকনাফ জানিয়েছেন টেকনাফ থানার ওসি আতাউর রহমান খোন্দকার।

Teknaf Pic-(A)-05-10-15এছাড়াও টেকনাফ মডেল থানা পুলিশ ৬ কেজি মারিজুয়ানাসহ ২ ব্যক্তিকে আটক করেছে। পুলিশ জানিয়েছে,  ভোররাতে টেকনাফ মডেল থানার এসআই শাফায়েত এর নেতৃত্বে একদল পুলিশ গোপন সংবাদের ভিত্তিতে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের ফুলের ডেইল এলাকায় ফিরোজের বাড়িতে অভিযান চালায়। এসময় ৬ কেজি মারিজুয়ানাসহ মৃত এলাহ দাদের পুত্র মোঃ ফিরোজ (৬০) ও মৃত আব্দুল গফুরের পুত্র শামসুল আলম বাবুল (৩৫) কে আটক করে পুলিশ। আটক ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট আইনে মামলা দায়ের করে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন টেকনাফ থানার  ওসি আতাউর রহমান খোন্দকার।


পূর্ববর্তী - পরবর্তী সংবাদ
                                       
ফেইসবুকে আমরা