বাংলাদেশ, , বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২

দুই মিনিটেই ম্যাচ জিতে নিল বার্সেলোনা

আলোকিত কক্সবাজার ।।  সংবাদটি প্রকাশিত হয়ঃ ২০১৫-০৯-৩০ ১৭:১৪:৫০  

স্পোর্টস ডেক্স॥

বার্সেলোনার খেলা হলেই সবার মুখে ভাসে লিওনেল মেসির নাম। কিন্তু এই দলেই যে আরও বেশ কয়েকজন ম্যাচ উইনার আছেন সে কথা যেন ভুলেই যান সবাই। লা লিগার সর্বশেষ ম্যাচে লা পালমাসের বিপক্ষে চোটগ্রস্ত মেসি মাঠে থাকবেন না আগামী দুই মাস। লুইস সুয়ারেজ যেন এটাকে সুযোগ হিসেবেই নিচ্ছেন। মেসির অনুপস্থিতির প্রথম দিনেই নিজেকে ম্যাচ উইনার হিসেবে প্রমাণ করলেন এই উরুগুইয়ান। চ্যাম্পিয়নস লিগে বেয়ার লেভারকুসেনের বিপক্ষে বার্সেলোনাকে জয় এনে দিলেন দারুণভাবেই।
ম্যাচের শুরুর দিকে একেবারেই ভালো করতে পারেনি বার্সেলোনা। শুরুতেই হাভিয়ের হার্নান্দেজের শটটি মার্ক টের স্টেগেন না আটকালে প্রথমেই পিছিয়ে পড়তে পারত বার্সেলোনা। তবে এই সময় সান্দ্রো রামিরেজ সুযোগ কাজে লাগাতে পারলে এগিয়ে যেতে পারত বার্সেলোনাই। ২২ মিনিটে ন্যু ক্যাম্পকে স্তব্ধ করে দিয়ে গোল করে বসেন লেভারকুসেনের কিউরিয়াকোস পাপাদোপোলস। কর্নার থেকে পাওয়া এক বল আলতো এক হেডে জালে পাঠান এই গ্রিক ফুটবলার।
গোল খেয়েই যেন নিজেদের ফিরে পায় বার্সেলোনা। প্রতিপক্ষের সীমানায় বইয়ে দেয় আক্রমণের ঢেউ। কিন্তু গোলের দেখাটাই কেবল তারা পায়নি। বার্সেলোনার সামনে এই সময় বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে হয় ভাগ্য নয়তো লেভারকুসেন গোলরক্ষক বার্ন্ড লেনো।
দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য আক্রমণ-পাল্টা আক্রমণে খেলা জমেছিল যথেষ্টই। গোলের চেষ্টা করে গিয়েছে দুই দলই। খেলার ৬০ মিনিটে বার্সেলোনা বড় ধাক্কা খায় আন্দ্রেস ইনিয়েস্তা চোট পেয়ে মাঠ ছাড়লে। সান্দ্রোর বদলে মাঠে নামা মুনির এল হাদ্দাদি তৈরি করে দেন বার্সেলোনাকে ম্যাচে ফেরার সুযোগ। ৮০ মিনিটে তাঁর জোরালো শট লেভারকুসেন গোলরক্ষক লেনো ফেরালেও ফিরতি বল থেকে জালে পাঠান সার্জিও রবার্তো।
গোল পেয়ে উজ্জীবিত বার্সেলোনা মাত্র ২ মিনিটের মাথায় নিজেদের দ্বিতীয় গোল আদায় করে নেয়। এবারও গোলে অবদান রেখেছেন মুনির। দুজন ডিফেন্ডারকে বোকা বানিয়ে তিনি বল বাড়িয়ে দেন সুয়ারেজের কাছে। সুয়ারেজের জোরালো শট জালে আশ্রয় নিলে এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। বাকি সময়টুকু বার্সার রক্ষণ নিজেদের কাজটুকু ঠিকঠাক করে কাটিয়ে দিলে জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে লুইস এনরিকের দল। সূত্র: এএফপি।


পূর্ববর্তী - পরবর্তী সংবাদ
                                       
ফেইসবুকে আমরা