রবিবার, ২০ জুন ২০২১, ০১:৪৪ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
আলোকিত কক্সবাজার অনলাইন পত্রিকার  উন্নয়ন কাজ চলছে ; সাময়িক সমস্যার জন্য আন্তিরকভাবে দুঃখিত - আলোকিত কক্সবাজার পরিবারে যুক্ত থাকায় আপনার কাছে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ।

লক্ষণ ছাড়া-ই করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে

সায়ীদ আলমগীর;
  • প্রকাশিত সময় : শনিবার, ২০ মার্চ, ২০২১
  • ১৩৯ বার পড়া হয়েছে

গত বছর সারাবিশ্বে মহামারী হিসেবে ছড়ানোর পর স্বাস্থ্যবিধি মানায় কিছুটা নিয়ন্ত্রণে চলে এসেছিল করোনা। কিন্তু গত পক্ষকাল পূর্ব হতে আবারো মাথাচাড়া দিয়ে উঠেছে এ ভাইরাস। শুরুতে এটি লক্ষণ দেখিয়ে আক্রান্ত করলেও চলমান সময়ে লক্ষণ ছাড়ায় করোনা সংক্রমণের হার বাড়ছে। প্রতিদিনের রিপোর্টে আক্রান্তের মাঝে ৮০ শতাংশ লোকই লক্ষণছাড়াই করোনা পজিটিভ হচ্ছে। তাই নিজে নিরাপদ থাকার পাশাপাশি আশপাশের সবাইকে সতর্ক করা দরকার। হাত-নাক-মুখ ও চোখকে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বাঁচাতে পারলে নিরাপদ থাকা যাবে।

শনিবার (২০ মার্চ) দুপুরে করোনা সংক্রমণ রোধে করণীয় বিষয়ে প্রচারণা চালাতে কক্সবাজারের সাংবাদিকদের নিয়ে বায়তুশ শরফ চক্ষু হাসপাতাল আয়োজিত মতবিনিময় সভায় বিশেষজ্ঞরা এসব কথা তুলে ধরেন।

চোখের যত্ন ও করোনা বিষয়ে কক্সবাজার বায়তুশ শরফ হাসপাতালের কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠিত সভার মূখ্য আলোচক ছিলেন উড়ন্ত চক্ষু হাসপাতাল অরবিস ইন্টারন্যাশনালের প্রোগ্রাম ডিরেক্টর মোহাম্মদ আলা উদ্দিন।

ভিডিও কনফারেন্সে যুক্ত হয়ে তিনি বলেছেন, ১৯৮২ সালে ইউএসএতে যাত্রা শুরু করা অরবিস ২০০০ সাল থেকে চোখের যত্নে বাংলাদেশে কাজ করছে। দেশে ৪০০ কমিউনিটি ক্লিনিকে চক্ষু চিকিৎসা সেবা দেয় অরবিস। ৩০টি ভিশন সেন্টার করা অরবিসের জাতীয় প্লাটফর্ম করার পরিকল্পনা রয়েছে।

তিনি উদ্বেগের সঙ্গে বলেন, সারাদেশে ডায়াবেটিস মহামারীর মতো ছড়াচ্ছে। আক্রান্ত হচ্ছে ছোট বড় সবাই। চোখের ক্ষতি করে বসছে ডায়াবেটিস। তাই ডায়াবেটিস ইন্সটিটিউটের সাথেও কাজ করছে অরবিস। কক্সবাজারে চক্ষু চিকিৎসা সেবা কার্যক্রমকে আরো গতিশীল ও সমৃদ্ধ করতে সবার পরামর্শ এবং সহযোগিতা চান মোহাম্মদ আলা উদ্দিন।

কোভিড-১৯ সংক্রমণ প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ বিষয়ে বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরে আলোচনা করেন কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের সার্জারি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ও আইপিসি ফোকাল পারসন ডা. মো. আরিফ হোসেন। কোভিড-১৯ নিয়ে দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের মেডিসিন বিবাগের সহযোগী অধ্যাপক ডা. মুহম্মদ নুরুল আলম।

তারা বলেন, করোনার সঠিক চিকিৎসা এখনো আবিস্কার হয়নি। এরপরও নিয়ন্ত্রণে আবিস্কার প্রতিষেধক শতভাগ কাজ করছে না। তার উপর এখন লক্ষণছাড়াই করোনা পজিটিভের সংখ্যা বাড়ছে-যা উদ্বেগজনক। এমন পরিস্থিতিতে পরিচ্ছন্নতার সাথে সামাজিক দূরত্ব ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললেই কেবল করোনার আক্রমণ থেকে নিস্তার পাওয়া যেতে পারে। তাই নিয়ম মেনে সাবান-হ্যান্ডওয়াশ বা স্যানিটাইজার নিয়মিত হাত পরিস্কার করা জরুরী। করোনা থেকে বাঁচতে মাস্ক পরার পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি শতভাগ মেনে চলতে পারলে আক্রান্তের ঝুঁকি কমবে। হাত-নাক-মুখ ও চোখকে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ থেকে বাঁচাতে পারলে নিরাপদ থাকা যাবে। এজন্য দরকার জীবানুনাশক দিয়ে নিয়মমতো হাত ধুঁয়ে নাক-মুখ-চোখ ধরা থেকে বিরত থাকা।

একজন মানুষের প্রধান পাঁচটি ইন্দ্রিয়ের মাঝে (চোখ, কান, নাক, জিহ্বা ও চামড়া) গুরুত্বপূর্ণ হলো চোখ। এসবে পরিচর্যা নিয়ে আলোচনা করেন ইংরেজি দৈনিক বাংলাদেশ পোস্ট’র নির্বাহী সম্পাদক শিহাবুর রহমান (শিহাব)।

করোনা ভাইরাস সম্পর্কে ব্যাপক গণসচেতনতা সৃষ্টিতে সাংবাদিকদের ভূমিকার প্রশংসা করে বায়তুশ শরফ কমপ্লেক্সের মহাপরিচালক এমএম সিরাজুল ইসলাম বলেন, আগামীতেও যার যার অবস্থান থেকে সচেতনতার বিষয়ে প্রচারণায় জোরালো ভূমিকা রাখা বাঞ্চনীয়। এতে পরিবার ও প্রতিবেশীর পাশাপাশি দেশ নিরাপদ থাকতে পারে।

বায়তুশ শরফ হাসপাতালের ব্যবস্থাপক (প্রোগ্রাম ও অপারেশন) শহীদ উদ্দিন মাহমুদের সঞ্চালনায় সাংবাদিকদের নিয়ে আয়োজিত মতবিনিময় সভায় শুরুতে স্বাগত বক্তব্য রাখেন বায়তুশ শরফ হাসপাতালের সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা এসএম কামাল উদ্দিন।

ফাইনান্স এন্ড এডমিন অফিসার দেলোয়ার হোসেন, আইটি অফিসার সোলেন চাকমা এবং বিভিন্ন ইলেকট্রনিক্স ও প্রিন্ট মিডিয়ায় কক্সবাজারে কর্মরত বিপুল সংখ্যক গণমাধ্যমকমী ও সংশ্লিষ্টরা এত উপস্থিত ছিলেন।

অনলাইন বিজ্ঞাপন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

অনলাইন বিজ্ঞাপন

নিবন্ধনের জন্য আবেদিত
Design and Develop By MONTAKIM
themesba-lates1749691102