শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ১১:৫৭ পূর্বাহ্ন
নোটিশঃ
আলোকিত কক্সবাজার অনলাইন পত্রিকার  উন্নয়ন কাজ চলছে ; সাময়িক সমস্যার জন্য আন্তিরকভাবে দুঃখিত - আলোকিত কক্সবাজার পরিবারে যুক্ত থাকায় আপনার কাছে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ।

‘প্রশাসন একাডেমি’ লীজ স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট মন্ত্রি পরিষদ সচিবসহ ৪ সচিবের বিরুদ্ধে রুল..

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • প্রকাশিত সময় : সোমবার, ১১ অক্টোবর, ২০২১
  • ৬৯ বার পড়া হয়েছে

ফাইল ছবি।

 

কক্সবাজারে মেরিন ড্রাইভ সংলগ্ন শুকনা ছড়িতে প্রশাসন একাডেমির নামে ৭০০ একর বনভূমির লীজ তিন মাসের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। সোমবার (১১ অক্টোবর) হাইকোর্টের বিচারপতি মো.মুজিবুর রহমান মিয়া এবং বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লা’র সমন্বয়ে গঠিত অবকাশ কালীন ব্যাঞ্চ এই অদেশ দেন।

 

একই সাথে মন্ত্রি পরিষদ সচিব, সংস্থাপন মন্ত্রণালয়ের সচিব, বন সচিব, ভূমি সচিবকে এ বিষয়ে জবাব দিতে রুল জারি করা হয়েছে।

 

কক্সবাজার নাগরিক ফোরামের সভাপতি ও বন্দোবস্তি বাতিল চেয়ে রীটকারি আ ন ম হেলাল উদ্দিন এ তথ্য জানিয়েছেন।

 

জানা যায়, ‘প্রশাসন একাডেমি’ নামক একটি সংগঠনের নামে কক্সবাজার শুকনা ছড়ি এলাকার ৭০০ একর বনভূমি লীজ দেয়া হয়। নামমাত্র মূল্যে এ বিশাল বনসম্পদ লীজের বিষয়টি জানাজানি হলে নড়েচড়ে বসে স্থানীয়রা। লীজ বাতিলের দাবি নিয়ে কক্সবাজার নাগরিক ফোরামসহ পেশাজীবি ও পরিবেশবাদি সংগঠনগুলো বিভিন্ন সভা সমাবেশ ও মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করে।

 

প্রতিবাদ কর্মসূচিতে বক্তারা কক্সবাজারের স্বার্থ বিরোধী ও পরিবেশ ধ্বংস হতে পারে এমন সিদ্ধান্ত দ্রুত প্রত্যাহার করে বনভূমি লীজ বাতিল করার দাবি জানান। যদি প্রশাসন একাডেমির নামে পাহাড়ী বনভূমির বিশাল জমি লীজ দেয়া হয় তবে পাহাড় ধ্বংসের পাশাপাশি পরিবেশ ও প্রতিবেশের উপর মারাক্তক প্রভাব পড়বে বলেও দাবি করেন তারা।

 

এরই প্রেক্ষিতে গেল সেপ্টম্বর মাসের শুরুর দিকে পরিবেশ ও প্রতিবেশ রক্ষায় কক্সবাজার নাগরিক ফোরামের পক্ষ থেকে উচ্চ আদালতে রীট পিটিশন দায়ের করা হয় (রিট নং-৭৬০১/২১)। সোমবার (১১ অক্টোবর) দীর্ঘ শুনানি শেষে বিচারপতি মো.মুজিবুর রহমান মিয়া এবং বিচারপতি মো. কামরুল হোসেন মোল্লা’র অবকাশকালীন ব্যাঞ্চ লীজ আদেশের উপর তিন মাসের স্থগিত আদেশ দেন। একই সাথে এ সংক্রান্ত জবাব দিতে চার সচিবের বিরুদ্ধে রুলনিশি জারি করেছেন। হাইকোর্টের আইনজীবী একে এম মনিরুজ্জামান কবির রিটের পক্ষে শুনানিতে অংশ নেন।

 

কক্সবাজার নাগরিক ফোরামের সভাপতি আ ন ম হেলাল উদ্দিন বলেন, কক্সবাজারের সমুদ্র সৈকত ঘেরা বনভূমি শুধু কক্সবাজারের সম্পদ নয়, এটি জাতীয় সম্পদ। প্রাকৃতিক এ সম্পদ ধ্বংস করে প্রশাসনিক একাডেমি নির্মাণ কখনো সমর্থণযোগ্য নয়। কক্সবাজারের মানুষ এ হটকারি সিদ্ধান্ত মেনে নিবে না। মহামান্য হাইকোর্টের সোমবারের আদেশ কক্সবাজারবাসির প্রাথমিক বিজয় হিসেবে উল্লেখ করেন নাগরিক ফোরামের সভাপতি।

অনলাইন বিজ্ঞাপন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

অনলাইন বিজ্ঞাপন

নিবন্ধনের জন্য আবেদিত
Design and Develop By MONTAKIM
themesba-lates1749691102