শনিবার, ৩১ জুলাই ২০২১, ০২:৫৫ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
আলোকিত কক্সবাজার অনলাইন পত্রিকার  উন্নয়ন কাজ চলছে ; সাময়িক সমস্যার জন্য আন্তিরকভাবে দুঃখিত - আলোকিত কক্সবাজার পরিবারে যুক্ত থাকায় আপনার কাছে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ।

নারী মজেছেন এলিয়েনের প্রেমে!

ডেস্ক নিউজ:
  • প্রকাশিত সময় : সোমবার, ২৮ জুন, ২০২১
  • ২৫ বার পড়া হয়েছে

মানুষ মানুষের প্রেমে পড়বে সেটাই তো স্বাভাবিক। তবে মানুষ হয়ে কেউ এলিয়েনের প্রেমে পড়ে, এমন কথা শুনেছেন কখনো? পুরুষদের প্রতি বিরক্ত হয়ে এবার ইংল্যান্ডের এক নারী অদ্ভুত কাণ্ড ঘটিয়েছেন। ব্রিটিশ এক নারী ইউটিউবার ও অভিনেত্রী এলিয়েনের প্রেমে পড়েছেন বলে সম্প্রতি তিনি দাবি করেছেন।

তার ধারণা, একসময় না-কি মানুষ পৃথিবীর বাইরের প্রাণীদের সঙ্গে প্রেমের বিষয়টি স্বাভাবিকভাবেই নেবে। এক সন্ধ্যায় মনের মানুষের খোঁজে লন্ডনের এই অভিনেত্রী ও ইউটিউবার অ্যাবি বেলা জানলার পাশে বসে আকাশপানে তাকিয়ে ছিলেন। এই নারী দাবি করেন, হুট করে একটি অপরিচিত উড়ন্ত যানের উপস্থিতি আকাশে লক্ষ্য করেন।

ধীরে ধীরে আকাশযানটি তার দিকে ছুটে আসে। হঠাৎই সেই উড়ন্ত এলিয়েনবাহী যানের ভেতরে স্বয়ংক্রিয়ভাবে ঢোকানো হয় তাকে। আর সেখানেই এক এলিয়েনের সঙ্গে তার প্রেম হয়ে যায়! পৃথিবীতে চলমান মহামারি এবং সবকিছুতে বিতৃষ্ণা চলে আসায় বেলা অনলাইনে রসিকতা করে বলেছিলেন, তিনি চান কোনো এলিয়েন যেন তাকে অপহরণ করে নিয়ে যায়!

তারও আগে তিনি প্রায়ই স্বপ্নে একটি সাদা আলো দেখতেন। গত মাসের শেষের দিকে এক রাতে তিনি স্বপ্ন দেখেন একটি কণ্ঠ তাকে বার্তা দিচ্ছে, ‘ঠিক জায়গায় অপেক্ষা করো’। বেলা এর আগে আর কখনোই স্বপ্নে এমন কণ্ঠ শোনেননি। তবে সেই কণ্ঠ তাকে কি বলতে চাচ্ছে তা তিনি বুঝতে পেরেছিলেন।

পরের দিন সন্ধ্যায় তিনি জানালার পাশে বসে অপেক্ষা করছিলেন। রাত ধীরে ধীরে গভীর হচ্ছিল। সময়ের কাঁটা যখন ১২টা পার হয়েছে; তখন তিনি এক উড়ন্ত যান দেখতে পান আকাশে। বেলা কিছু বুঝে ওঠার আগেই আবিষ্কার করেন, তিনি বেডরুমে নয় বরং এলিয়েনবাহী উড়ন্ত যানটির নিচে দাঁড়িয়ে আছেন। তীব্র সবুজ রঙের আলো তার উপর পতিত হলে নিমিষেই ঢুকে যান যানটির ভিতরে।

এরকম ঘটনায় আর কেউ হলে হয়তো ঘাবড়ে যেত। তবে বেলা সেরকম নারী নন। ইউটিউবে এক ভিডিওতে তিনি জানিয়েছেন, তিনি এমন একজন মানুষ যার পুরো জীবনই কেটেছে অদ্ভুত সব ঘটনার মধ্য দিয়ে। বেলা উড়ন্ত যানের মধ্যে ৫ জন এলিয়েনকে দেখতে পান। তারা দেখতে ছিলেন লম্বা এবং সরু!

যদিও তাদের সত্যিকারের শারীরিক গঠন সম্পর্কে তিনি বুঝে উঠতে পারছিলেন না সেই মুহূর্তে। তিনি জানান, ‘আমি তাদেরকে ঠিকঠাক দেখতে পাচ্ছিলাম না। তারা টেলিপ্যাথিকালি আমাকে জানায়, আমি না-কি এখনো তাদের (এলিয়েনদের)আসল রূপ দেখতে প্রস্তুত নই! তবে আমার সামর্থের মধ্যে আমি যা দেখেছি সেটা হলো, তারা ছিল সবুজ রঙের অবয়ববিশিষ্ট এবং মানুষের মতই কালো বড় বড় চোখ আছে তাদের।’

স্থানীয় এক ম্যাগাজিনের অনুরোধে বেলা তার দেখা এলিয়েনের ছবি এঁকেও দেখান। এলিয়েনদের মধ্যে একজন, বেলার সঙ্গে টেলিপ্যাথিকালি যোগাযোগ করেছিলেন। প্রথম দেখায় এবং যোগাযোগেই প্রেম হয়ে গিয়েছিল তাদের বলে জানান বেলা।

মহাজাগতিক এই যুগলকে কিছু চ্যালেঞ্জের মুখোমুখিও হতে হয়েছে। যেমন- বেলাকে প্রেমিক এলিয়েন বলেছেন মানুষের সঙ্গে প্রেম করা তাদের কৃষ্টি অনুযায়ী নিষিদ্ধ। তবে বেলার জন্য সে সব বাঁধা-বিপত্তি অতিক্রম করতে প্রস্তুত আছে। যদি বেলার সম্মতি থাকে তাহলে তারা তাকে তাদের গ্রহে নিয়ে যাবে।

তবে পৃথিবী ছেড়ে চিরতরে চলে যাওয়ার বিষয়ে নিশ্চিত ছিলেন না বিধায় বেলা শেষপর্যন্ত হ্যাঁ বলতে পারেননি। ২০ মিনিট অতিক্রান্ত হওয়ার পরে দুঃখ ভারাক্রান্ত মন নিয়ে বেলা ফিরে আসেন তার ঘরে। তবে এলিয়েনদের ব্যবহার এবং সৌজন্যতা তাকে মুগ্ধ করে রেখেছে আজও।

যদিও অনেকেই বেলার এই কাহিনী নিয়ে সন্দেহ পোষণ করেছেন। তবে গ্রহান্তরের প্রেমিকের কাহিনী শুনিয়ে অন্যদের নতুন করে চিন্তা করতে ও স্বপ্ন দেখতে উদ্বুদ্ধ করেছেন বেলা।

সূত্র: অল দ্যটিস ইন্টারেস্টিং

অনলাইন বিজ্ঞাপন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

অনলাইন বিজ্ঞাপন

নিবন্ধনের জন্য আবেদিত
Design and Develop By MONTAKIM
themesba-lates1749691102