শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬:৩৬ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
আলোকিত কক্সবাজার অনলাইন পত্রিকার  উন্নয়ন কাজ চলছে ; সাময়িক সমস্যার জন্য আন্তিরকভাবে দুঃখিত - আলোকিত কক্সবাজার পরিবারে যুক্ত থাকায় আপনার কাছে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ।

চট্টগ্রামে মহিলা আ’লীগ নেত্রীর বিরুদ্ধে সাবেক ছাত্রলীগ নেতার মামলা

ডেস্ক নিউজ:
  • প্রকাশিত সময় : বুধবার, ৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ৮৪২ বার পড়া হয়েছে

চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক দিলোয়ারা কায়েস সুমি।

 

ফেসবুকে মানহানিকর পোস্ট, কমেন্ট ও শেয়ার করার অভিযোগে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক দিলোয়ারা কায়েস সুমিসহ ১৩ জনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সিনিয়র সহ-সভাপতি ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য এরশাদুর রহমান চৌধুরী বাদী হয়ে চট্টগ্রাম সাইবার ট্রাইব্যুনালে মামলাটি করেছেন।

৫ সেপ্টেম্বর শুনানি শেষে আদালত মামলাটি গ্রহণ করে পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। তবে বিষয়টি জানাজানি হয় আজ বুধবার।

মামলার অন্যান্য আসামিরা হলেন- বাঁশখালীর পশ্চিম পুঁইছড়ি আরবশাহ্ জমিদার বাড়ির আলমগীর চৌধুরীর পুত্র মো. মামুনুর রহমান চৌধুরী (৩০), মো. হোসেন চৌধুরীর পুত্র আনিসুল হক চৌধুরী (৪৬), লিয়াকত চৌধুরী (৪২), শীলকূপের রাসেল ইকবাল (২৮), শাফকাত খান (২৫), রিয়াজ উদ্দিন (৩০), মাকছুদুল ইসলাম (৫৫), কায়েস চৌধুরীর পুত্র তাহসিন হেসেন চৌধুরী, শাইয়ার পাড়ার আর. টি রাকিবুল ইসলাম (২৪), সরলিয়া ঘোনা এলাকার মোজাহিদুল ইসলাম সাইদ (২৩), নীল আকাশের পরী (ফেসবুক আইডির মালিক), আরবশাহ জমিদার বাড়ির আলমগীর চৌধুরীর পুত্র প্রবাসী মো. হামিদ (৩০)।

মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী দিলোয়ারা কায়েস সুমিসহ অন্যান্য আসামিরা ইতিমধ্যে এরশাদুর রহমান চৌধুরীকে নিয়ে তাদের নিজ নিজ আইডিতে বিভিন্ন কুরুচিপূর্ণ ও অসামাজিক পোস্ট আপলোড, কমেন্ট ও শেয়ার করেছেন।

এ বিষয়ে মামলার বাদী ও আওয়ামী লীগের নেতা এরশাদুর রহমান চৌধুরী বলেন, ‘আমার এলাকা পুঁইছড়িতে এমন কোন মানুষ নেই, যাদের উপকার আমি করিনি। দুঃসময়ে সবাই বেশি আর কম আমার সহযোগিতা পেয়েছেন। আমার জনপ্রিয়তায় ঈর্ষান্বিত হয়ে একটি মহল টাকার বিনিময়ে একটি চক্রকে আমার বিরুদ্ধে লেলিয়ে দিয়েছে। তারা প্রতিদিন আমি ও আমার স্ত্রীর ছবি এডিট করে ফেসবুকে ‘এরশাদুর রহমান চৌধুরীর ২য় স্ত্রী পাওয়া গেছে’ লিখে কুরুচিপূর্ণ স্ট্যাটাস দিচ্ছে। অবশেষে বাধ্য হয়ে আইনের আশ্রয় নিয়েছি।’

অভিযোগের বিষয়ে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক দিলোয়ারা কায়েস সুমি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুর নাম ভাঙিয়ে আমার জায়গায় রাতের অন্ধকারে চারা রোপন করতে গিয়েছিল কথিত আওয়ামী লীগ নেতা। বাধা দেওয়ায় আমার এবং আমার পরিবারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন মিথ্যা অভিযোগ করা হচ্ছে। সঠিক তদন্ত হলে আমরা নির্দোষ প্রমাণিত হবো।’

সূত্র-একুশে পত্রিকা

অনলাইন বিজ্ঞাপন

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ বিভাগের আরো সংবাদ

অনলাইন বিজ্ঞাপন

নিবন্ধনের জন্য আবেদিত
Design and Develop By MONTAKIM
themesba-lates1749691102