শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০, ১০:১৮ পূর্বাহ্ন
নোটিশঃ
আলোকিত কক্সবাজার অনলাইন পত্রিকার  উন্নয়ন কাজ চলছে ; সাময়িক সমস্যার জন্য আন্তিরকভাবে দুঃখিত - আলোকিত কক্সবাজার পরিবারে যুক্ত থাকায় আপনার কাছে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ।

“কক্সবাজারের স্বপ্নজয়ী এক নারী উদ্যোক্তা রুপা আবদুল্লাহ”

প্রতিবেদক এর নামঃ
  • প্রকাশিত সময় : শনিবার, ২৫ এপ্রিল, ২০২০
  • ৯৭২ বার পড়া হয়েছে

তামিরুল ইসলাম মিল্লাত:

চারদিকে যখন ভেজালের রমরমা, ঠিক তখনই কক্সবাজারবাসীর জন্য সুখবর নিয়ে আসেন কক্সবাজারেরই এক উদ্যমী নারী। ভেজালের গন্ডি থেকে বের করে স্বাস্হ্যসম্মত খাবার দিয়ে চমকে দেন সবাইকে। ‘সেরা বেইকার’ হিসেবে জাতীয় পর্যায়ে পুরস্কার প্রাপ্তিই কেবল অর্জন নয়, অসাধারণ জীবনের গল্প রচনা করেছেন যে নারী, তিনি কক্সবাজারের রুপা আবদুল্লাহ

কক্সবাজার শহরের প্রানকেন্দ্রে উত্তর রুমালিয়ার ছড়ার বাসিন্দা ডাঃ মোহাম্মদ আবু সাঈদের ছোট মেয়ে রুপার আজকের অবস্থানে আসার গল্পটা রীতিমতো এভারেস্ট জয়ের মত। পরিবারের ছোট মেয়ে হওয়ায় রান্না করার সুযোগ সহজেই না মিললেও মায়ের সাথে যাওয়া হত রান্না ঘরে। তবে এসব বিষয়ে তার আগ্রহ ছিলনা বললেই চলত। কিন্তু ছোটকাল থেকেই বেকারি আইটেম নিয়ে তার আলাদা দুর্বলতার কারণে কলেজ জীবন থেকে গবেষণা শুরু করেন রুপা।

এর স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে বলেন, ‘ ইউটিউব ,বই,পত্রিকা কোন কিছু বাদ রাখিনি এই বেকারি আইটেম তৈরী করা শিখার জন্য।’ কিন্তু শুধু গবেষণায় সীমাবদ্ধ না থেকে হাতে কলমে কাজ শুরু করার পরিকল্পনা নেন তিনি।

স্বামী ছৈয়দ মোহাম্মদ আবদুল্লাহর একান্ত সহযোগীতায় ২০১৭ সালে শুরু করা রুপাই বনে যান কক্সবাজারের প্রথম অনলাইন ভিত্তিক ‘হোম মেইড কেইক মেকার’। বর্তমানে তিনি একজন সফল নারী উদ্যোক্তা হিসেবে নিজেকে পরিচয় দিতে স্বাচ্ছন্দবোধ করেন। কক্সবাজারে ঘরে বসেই যে অনলাইন থেকে ‘হোম মেইড কেইক ও ডেজার্ট’ কেনা যায় এই অসম্ভবকে বর্তমানে সম্ভবে রূপান্তর করেছেন তিনি এবং তার ফেইসবুক পেইজ ‘Cookio’ । প্রথম প্রথম অনলাইনে অর্ডার নেয়া এবং ডেলিভারী দিতে বিভিন্ন সমস্যার সম্মুখীন হলেও সময়ের আবর্তনে তা অনেকটা সহজ হয়ে গেছে হলেও জানান রুপা।

বিগত বছর থেকে তার ব্যবসার পরিধি বেড়ে যাওয়ায় অনেক সময় অর্ডারের চাপে হিমশিম খেতে হয় তাকে। তবে মাস শেষে ৮০-৯৫ হাজার টাকার মত বিক্রি সব কষ্ট দূর করে দেয় বলেও জানান তিনি। তবে গল্পটি যত সহজে বলা গেল বাস্তবতা অতটা মসৃণ ছিলোনা রুপার জন্য। বর্তমানে শশুর বাড়ির সবার সাপোর্ট আর নিজের একান্ত প্রচেষ্টায় পিছনের গল্পগুলোকে কিছুটা হলেও সহজ করে ফেলেছেন তিনি।

এ বিষয়ে রুপা বলেন, ‘নারী হিসেবে ব্যবসা করার বিষয়টি সমাজ খুব সহজ ভাবে মেনে নেয় না। তাও আবার গ্রামের মত জায়গায়।স্বামীর সহযোগীতা না পেলে হয়ত কখনো আজকের এই অবস্থানে আসতে পারতাম না।সবার উদ্দেশ্যে বলতে চাই,কোন কাজই ছোট নয়।সেটা হোক ঘরে বসে অথবা ঘরের বাইরে’।

ভবিষ্যত পরিকল্পনা বিষয়ে রুপার কাছে জানতে চাওয়া হলে বলেন, ‘পরিকল্পনা করেছি অসহায় পরিবারের নারীদের নিয়ে কাজ করা। সংগ্রাম করে এ পর্যন্ত এসেছি। বাকি জীবনটাও সংগ্রাম করে কাটিয়ে দেব অসহায়দের পাশে থেকে’। এজন্য সমালোচকদের সমালোচনা বাদ দিয়ে তাকে সহযোগীতা করারও আহবান জানান রুপা।

রুপার স্বপ্ন একদিন কক্সবাজারের গন্ডি পেরিয়ে ‘Cookio’ সারাদেশে পরিচিতি লাভ করবে। হোম মেইড কেইক এর ব্রান্ড হিসেবে সারা দেশে সার্ভিস দিবে।

উদ্যোক্তার ব্যবসায়িক অনলাইন পেইজ: https://www.facebook.com/cookio.online

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

এ বিভাগের আরো সংবাদ
নিবন্ধনের জন্য আবেদিত
Design and Develop By MONTAKIM
themesba-lates1749691102