বিএনপি জামায়াতের আমলনামাঃ পর্ব ২- প্রফেসর ইউনুস হত্যাকাণ্ড

বিএনপি জামায়াতের আমলনামাঃ পর্ব ২- প্রফেসর ইউনুস হত্যাকাণ্ড

ভাগ

ডেক্স নিউজ:

বিএনপি-জামায়াত সরকারের আমলেই জঙ্গীবাদ ও উগ্রপন্থার প্রবল বিস্তার ঘটে। ২০০১ সালে ক্ষমতায় আসার সাথে সাথেই তারা চালাতে থাকে জঘন্য সব অপকর্ম। দেশব্যাপী একে একে খুন করা হয় মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী ব্যক্তিদেরকে।

২০০৪ সালের ২৪ ডিসেম্বর রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের শিক্ষক ও বঙ্গবন্ধু পরিষদের তৎকালীন সভাপতি প্রফেসর ড. ইউনুসকে নগরীর বিনোদপুর এলাকায় কুপিয়ে হত্যা করে জঙ্গি সংগঠন শিবির ও জেএমবি। এই নৃশংসতম হত্যাকাণ্ড কেবল রাজশাহী নয়, গোটা দেশকেই স্তম্ভিত করে দেয়।

প্রফেসর ইউনুসকে হত্যার মাধ্যমে রগকাটা বাহিনী শিবির আরো একবার তাদের সন্ত্রাসী চরিত্রের পরিচয় দেয়। জেএমবিও জানান দেয় তাদের ব্যাপক শক্তিমত্তা।
খুনী খালেদা-তারেক গং এর প্রত্যক্ষ মদদে জঙ্গীগোষ্ঠীর লাগামহীন বেপরোয়া হবার সেই ভয়াল সময়গুলো আজও শান্তিপ্রিয় দেশবাসীকে চমকে দেয়।

স্বনামধন্য অর্থনীতিবিদ, মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক এবং বহুমুখী প্রতিভাসম্পন্ন শিক্ষাবিদ ছিলেন শহীদ প্রফেসর মোহাম্মদ ইউনুস। ২৪ ডিসেম্বর ২০০৫ সালে ফজরের নামাজের সময়ে বাসভবনের কাছে মোহাম্মদ ইউনুসকে নির্মমভাবে কুপিয়ে হত্যা করে জামায়াত-জেএমবির সন্ত্রাসী বাহিনী। এ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় নিহতের  তার ছোট ভাই আব্দুল হালিম বাদী হয়ে ওইদিন মতিহার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। সিআইডি পুলিশ মামলার তদন্ত শেষে ৮ জেএমবি সদস্যকে আসামি করে মামলার চার্জশিট দাখিল করে। ২৬ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে ২০১০ সালের ২৮ জানুয়ারি এ মামলায় দুই জনকে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দেন রাজশাহীর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মঞ্জুরুল বাছিদ। এছাড়া এই মামলায় ৬ আসামীকে বেকসুর খালাস দেয়া হয় । সূত্র-আমার বাংলা

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই

একটি উত্তর ত্যাগ