নাফনদীতে উদ্ধার হওয়া দুই যুবকের পরিচয় মিলছে

নাফনদীতে উদ্ধার হওয়া দুই যুবকের পরিচয় মিলছে

ভাগ

বিশেষ প্রতিবেদক:

কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার নাফ নদ থেকে হাত বাঁধা অবস্থায় উদ্ধার হওয়া দুই মরদেহের পরিচয় মিলেছে। মরদেহ উদ্ধারের পর থানায় এসে তাদের পরিচয় নিশ্চিত করেছেন স্বজনরা। তারা দুইজনই লেগুনার চালক ও হেলপার।

তারা হলেন টেকনাফের বাহারছড়ার শামলাপুরের আছারবনিয়া রোহিঙ্গা ক্যাম্পের বি-ব্লকের মৃত আব্দুস সালামের ছেলে সৈয়দ ইসলাম (২২) ও উখিয়ার মনখালী ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দা আব্দুল হকের ছেলে সরোয়ার আলম (২০)।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬টার দিকে নিহত রোহিঙ্গা যুবক সৈয়দ ইসলামের মা তাহেরা বেগম ও স্থানীয় উখিয়ার বাসিন্দা সরোয়ার আলমের মা সবুরা খাতুন থানায় এসে তাদের শনাক্ত করেন।

এর আগে দুপুর ১২টার দিকে উপজেলার হ্নীলা ইউনিয়নের সাইরং খাল ও টেকনাফ স্থল বন্দরে উত্তর পাশে জইল্ল্যার দ্বীপের কাঠের জেটি কাছাকাছি এলাকা থেকে মরদেহ দুটি উদ্ধার করা হয়। মরদেহ দুটির হাত-মুখ গামছা দিয়ে বাঁধা এবং প্যান্ট ও টিশার্ট পরিহিত ছিল। মরদেহ দুটি ময়নাতদন্তের জন্য কক্সবাজার মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ দুটি পরিবারের কাছে হস্থান্তর করা হবে। টেকনাফ মডেল থানা পুলিশের ওসি রনজিত কুমার বড়ুয়া এসব তথ্য জানিয়েছেন।

ওসি রনজিত কুমার বড়ুয়া বলেন, মরদেহ উদ্ধারের ঘটনায় মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ঘটনার আসল রহস্য উদঘাটনে কাজ চালিয়ে যাচ্ছে পুলিশ। অপরাধীদের শনাক্ত করে তাদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই

একটি উত্তর ত্যাগ