নতুন পুলিশ সুপারের কাছে প্রত্যাশা বেশি

নতুন পুলিশ সুপারের কাছে প্রত্যাশা বেশি

ভাগ

কক্সবাজার॥ সোমবার ১০ সেপ্টম্বর ২০১৮

কক্সবাজারে নতুন পুলিশ সুপার দু’একদিনের মধ্যে কাজে যোগদান করবেন। ইতিমধ্যে প্রজ্ঞাপন জারি হয়েছে। দীর্ঘদিন যিনি কক্সবাজারে দায়িত্বে ছিলেন তিনি নানা কারণে কক্সবাজারের মানুষের আশা আকাংখার প্রতিফলন ঘটাতে ব্যর্থ হয়েছেন। উল্টো তাঁর আমলে ঘটেছে নানা কলংকময় ঘটনা। বিশেষ করে ডিবি পুলিশের ৭ সদস্য অপরহণের সাথে জড়িত থাকার অবিযোগে টাকাসহ সেনাবাহিনীর হাতে আটক এবং ১০ লাখ ইয়াবাকে ১০ হাজার দেখিয়ে বিক্রি ও টাকা আত্মসাতের ঘটনা দেশব্যাপী ব্যাপক সমালোচনার জন্ম হয়।

আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর গুরুত্বপূর্ণ এ সংস্থাকে নিয়ে প্রশ্ন তুলতে সাহস দেখিয়েছেন। কক্সবাজারে এ অপরাধ সংগঠিত হলেও এ নিয়ে কেউ কথা বলেনি। সাধারণ মানুষ তো কখনো পুলিশের বিরুদ্ধে কথা বলতে সাহস করে না। কিন্তু কক্সবাজারের গণমাধ্যম প্রতিনিধিরাও এ নিয়ে কথা বলেনি। বরং পুলিশ সুপারের অপরাধ আড়াল করতে টাকার মিশনে নেছেন কতেক সংবাদকর্মী। বিতর্কিত সাবেক পুলিশ সুপার ড: একেএম ইকবাল হোসেনের অপরাধ যেন পত্রিকায় ছাপানো না হয় তা নিয়ে সংবাদকর্মী কিংবা সম্পাদক পর্যন্ত ধর্ণা দিতেন এ চক্রটি। কিন্তু বিধি বাম। অবশেষে ইয়াবাই কাল হয়ে দাড়িয়েছে জনাব ইকবালের জন্য। ফাঁস হয়ে গেলে ইয়াবা বিক্রির ঘটনা। তারই অধনস্থ এক পুলিশ অফিসার অভিযোগ করে বসেন তাঁদের বিরুদ্ধে। অনেক চেষ্টা তদবির করেও নিজেকে রক্ষা করতে পারলেন না সদ্য বদলি হওয়া পুলিশ সুপার। তার প্রিয় কথিত সংবাদকর্মীরাও তাঁকে রক্ষা করতে পারলেন না।

গত ৯ সেপ্টম্বর ট্যুরিস্ট পুলিশে তাকে বদলি করা হয়। ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের উপ-কমিশনার এ.বিএম মাসুদ হোসেনকে তার স্থলাভিষিক্ত করা হয়। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পুলিশ-১ অধিশাখার উপসচিব ধনঞ্জয় কুমার দাশ স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়। এ আদেশে ১৬ জন অফিসারের বদিলর আদেশ রয়েছে। জনস্বার্থে এ আদেশ অবিলম্বে কার্যকর হবে। এক সময় যারা ড: একেএম ইকবালকে ধুয়া তুলসি পাতা বলে প্রচার চালাতো তারা কেউ ইকবালের জন্য মায়া কান্না করেনি। তবে নতুন পুলিশ সুপারকে শুভেচ্ছা জানাতে ভুল করছেন না তারা। একজন পুলিশ সুপারকে এভাবে শুভেচ্ছা জানানোর অর্থ আমার বোধগম্য নয়। পুুলিশ তো নিজস্ব ধারাই কাজ করবে। মানুষের সেবা করবে। অন্যভাবে চিন্তার করলে ভুল হবে। তবে এক শ্রেণীর সুবিধাভূগী অভিসন্ধি লাভ করতে হয় তো আগাম শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন। আমি মনে করি জনাব মাসুদকে যার স্থলাভিষিক্ত করা হচ্ছে তিনি অপরাধের সাথে জড়িয়ে পড়েছিলেন। যেখানে পুলিশ বাহিনীর ভাবমূর্তি জড়িত রয়েছে। তাই কর্মের মাধ্যমে তাঁকে প্রমাণ করতে হবে তিনি জনগণের সেবক। এ বাহিনীর সদস্যরা মানুষের জন্য কাজ করে। ভবিষ্যতে ভাল কাজ করলে আমরা স্বাগত জানাবো। প্রতিটি ভাল কাজে সহযোগিতা করবো। আবার তিনিও যদি তাঁর পূর্বসুরী জনাব, ইকবালের মতো অপরাধের সাথে জড়িয়ে পড়েন তখন তো ধিক্কার জানাতে হবে। আমরা বিশ্বাস রাখতে চাই গণপ্রজাতন্ত্রের কর্মকর্তা হয়ে যে শপথ বাক্য আপনি পাঠ করেছেন তা মনে রাখবেন।

তবে আমি যে বিষয়টি নিয়ে শঙ্কা করছি তা হলো, কক্সবাজারে একটি চক্র রয়েছে। যারা সর্বময় ক্ষমতার অধিকারী ! বিশিষ্ট জ্ঞানী ! অতীতে এ চক্রটি বদলি হওয়া পুলিশ সুপারকে অক্টোপাশের মতো ঘিরে রেখেছিলো। নতুন পুলিশ সুপার আপনার কাছে অনুরোধ, আপনি কক্সবাজারের পুলিশ সুপার হবেন। মুখোশ পরিহিত চেতনাধারীদের কথায় গা ভাসিয়ে দেবেন না।

আমার জানা মতে আপনি মুক্তিযুদ্ধের চেতনা লালন করে দেশকে ভালবেসে কাজ করে যাচ্ছেন। অতীতে অসাদু কর্মকর্তাদের কারণে পুলিশ সম্পর্কে আমাদের বিশ্বাস আর আস্থার জায়গাটি দুর্বল হয়ে গেছে। অনেক সময় লজ্জাবতি লতার মতো মুখ ফিরিয়ে নিয়েছি। আপনি কক্সবাজারের মানুষের আস্থার জায়গাটা রক্ষা করবেন এটি প্রত্যাশা করছি। সরকারি কর্মকর্তা হিসেবে আপনার প্রতিটি মহৎ কাজে সবাইকে সারথি করবেন। অন্যথায় আপনার কাজটি সম্পর্কে অন্ধকারে রয়ে যাবে বিশাল একটি জনগোষ্টি। এছাড়া কক্সবাাজর জেলাটি ইয়াবার হাট হিসেবে পরিচিত। এ অপবাদ থেকে আমাদের শুধু নয়, পুলিশ প্রশাসনকেও রক্ষা করবেন।

আপনাকে মনে রাখতে হবে ভাল কাজের প্রশংসাকারী নগণ্য। তাই অত্যান্ত সতর্কভাবে পা ফেলে এগিয়ে যেতে হবে আপনাকে। আপনি হেরে গেলে সাধারণ মানুষের আস্থাটা আরো দুর্বল হয়ে পড়বে।

লেখক-ওয়াহিদুর রহমান রুবেল, সংবাদকর্মী

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই

একটি উত্তর ত্যাগ