সরকার বিরোধী আন্দোলনে ড. ইউনুসের টাকা ব্যবহার করার পরিকল্পনা তারেকের

সরকার বিরোধী আন্দোলনে ড. ইউনুসের টাকা ব্যবহার করার পরিকল্পনা তারেকের

ভাগ

নিউজ ডেস্ক:

কোরবানি ঈদের পর সরকার বিরোধী আন্দোলনে রসদ যোগাতে এবং হিংসাত্মক আন্দোলনে বিদেশি রাষ্ট্রসমূহের সমর্থন আদায় করতে এবার বিতর্কিত নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ ড. ইউনুসের শরণাপন্ন হচ্ছে বিএনপি। সূত্র বলছে, আন্দোলনে বিনিয়োগ করতে পকেট শুন্য হয়ে পড়ায় ড. ইসনুসের অর্থ ও আন্তর্জাতিক লবিং ব্যবহার করার জন্য উঠে পড়ে লেগে পড়েছেন লন্ডনে পলাতক বিএনপি নেতা তারেক রহমান। ড. ইউনুসের সাথে তাই সুসম্পর্ক তৈরি করে নিজেদের রাজনৈতিক স্বার্থ উদ্ধার করতে তারেক রহমানের আদেশ পালন করার জন্য কাজ করে যাচ্ছেন বিএনপি নেতা মির্জা ফখরুল, মির্জা আব্বাস এবং নজরুল ইসলাম খান।

লন্ডন বিএনপি সূত্র বলছে, বিগত চার বছরে একাধিক ইস্যুতে আন্দোলন করে ব্যর্থ হয়েছে বিএনপি। বিএনপির প্রতিটি আন্দোলন মুখ থুবড়ে পড়েছে নির্দেশনা এবং অর্থের অভাবে। লন্ডন থেকে বসে আদেশ দিলেও আন্দোলনে নিজ পকেটের টাকা খরচ করতে চান না তারেক। প্রতিবারই বড়লোক নেতা মির্জা ফখরুল, মির্জা আব্বাসের উপর নির্ভর করতে হয় তারেককে। আন্দোলন-সংগ্রামের নামে অর্থ ব্যয় করতে করতে এই দুই নেতাও হতাশ। নিজ পকেটের এক সিকিও খরচ করতে রাজি নন তারা। তাই বিকল্প ফান্ডিং সোর্সের খোঁজ শুরু করতে থাকেন তারেক। এরই মধ্যে গ্রামীণ ব্যাংকের বিতাড়িত ও স্বেচ্ছাচারি মালিক ড. ইউনুসকে টার্গেট করেন তারেক রহমান। কারণ এই ইউনুসই ১/১১ এর সময়ে রাজনৈতিক দল গঠন করে আওয়ামী লীগকে আটকাতে চেয়েছিলেন।

বর্তমান সরকারের সুবিচার প্রতিষ্ঠার কারণে গ্রামীণ ব্যাংক ড. ইউনুসের স্বেচ্ছাচারিতা থেকে মুক্তি পায়। সরকারের সুবিচারে নিজেদের স্বৈরতান্ত্রিক ক্ষমতা থেকে বঞ্চিত হওয়ার কারণে বিদেশ সফরের নামে বাংলাদেশ সরকারের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করতে থাকেন ড. ইউনুস। সরকারের উন্নয়ন অগ্রযাত্রায় গা জ্বালা নিয়ে বিদেশি বন্ধুরাষ্ট্রগুলোর কাছে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অপপ্রচার করতে থাকেন তিনি। ড. ইউনুস আওয়ামী লীগ সরকারের উপর প্রতিশোধ নিতে চান।  সেই অর্থে তারেক এবং ড. ইউনুসের ষড়যন্ত্র ও লক্ষ্য একই। এছাড়া ড. ইউনুস টাকার কুমির। সরকার বিরোধী আন্দোলন এবং বিদেশি রাষ্ট্রগুলোকে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে কাজ করাতে অর্থ সংগ্রহের জন্য ড. ইউনুসের অগণিত অর্থ ব্যয় করতে চান তারেক।

এছাড়া নিজের পকেট ভারি করারও একটি গোপন অভিলাষ রয়েছে তারেক রহমানের। ড. ইউনুসের টাকা খরচ করার লোক নাই। তাই তার টাকা নিজের মনে করে খরচ করতেই পারেন তারেক। সেই চিন্তা থেকে উদ্দেশ্য হাসিলের জন্য ড. ইউনুসকে বশ করতে মির্জা ফখরুল, আব্বাস এবং নজরুল ইসলাম খানকে লেলিয়ে দিয়েছেন তারেক রহমান। যেকোন মূল্যেই নির্বাচনের আগে ড. ইউনুসের কমপক্ষে ১০০ কোটি টাকা খসাতে চান তারেক। তারেক রহমানের নির্দেশে সেই লক্ষ্যেই ড. ইউনুসের সাথে টেলিফোনে যোগাযোগ রাখছেন বিএনপির তিন নেতা।সূত্র-বাংলা নিউজ পোস্ট।

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই

একটি উত্তর ত্যাগ