অষ্ট্রেলিয়ান গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্ট শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করেছেন তারেক রহমান

অষ্ট্রেলিয়ান গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্ট শিক্ষার্থীদের আন্দোলনকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করেছেন তারেক রহমান

ভাগ

 

নিউজ ডেস্ক : 

ঢাকায় বিএনপি নেতা তারেক রহমানের অন্তত দুই হাজার সশস্ত্র ক্যাডার তৎপর।  আর এই ক্যাডার বাহিনী ঢাকায় আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের ভিতরে ঢুকে আন্দোলনকে ভিন্ন খাতে প্রবাহিত করেছে বলে জানিয়েছে অষ্ট্রেলিয়া নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা (ASIO)।

Australian Security Intelligence Organisation-এর মতে, ঢাকায় নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীরা যে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করছিল। সেই আন্দোলনে তারেক রহমানের ১ হাজার কর্মী ঢুকে পড়ে ২ আগস্ট।  এছাড়া আরো এক হাজার কর্মী ফেসবুকে বিভিন্ন রকমের মিথ্যা তথ্য ছড়াতে থাকে।  যার ফলে অসংখ্য মানুষ বিভ্রান্ত হয়ে যায়। এর প্রতিফলন দেখা যায়, ৪ আগস্টে জিগাতলায় আওয়ামী লীগ অফিসে হামলার মাধমে।

কিন্তু দলীয় কর্মী থাকা অবস্থায়ও তারেক রহমান কেন ২ হাজার ক্যাডার বাহিনীর একটি টিম গঠন করলেন, এমন প্রশ্নের উত্তরও খুঁজে বের করেছে অষ্ট্রেলিয়ান গোয়েন্দারা।  তারা বলছেন, মূলত দলীয় কর্মীদের উপর অনাস্থার কারণের নতুন বাহিনী গঠন করেন তারেক রহমান।  বিএনপির অনেক শীর্ষ নেতাই সরকারের কাছে তথ্য পাচার করে দেন বলেও তারেকের ধারণা। তাছাড়া দলীয় লোকজনকে দিয়ে কাজ করালে, তার দায়িত্ব বিএনপির ওপর বর্তাবে, ফলে জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে বিএনপির ভূমিকা প্রশ্নবিদ্ধ হবে।  এই পরিপ্রেক্ষিতেই তারেক দলের বাইরে একটি নিজস্ব টিম করেছে বলে নিশ্চিত করেছে অস্ট্রেলিয়ান গোয়েন্দা সংস্থা।  এই টিমে যেমন আছে সশস্ত্র ক্যাডার, তেমনি আছে তথ্যপ্রযুক্তিতে দক্ষ তরুণেরাও।  এদের উদ্দেশ্য ছিল, সরকারের বিরুদ্ধে শিক্ষার্থী এবং জনগণকে ক্ষুব্ধ করে তোলা।  নাশকতা এবং গুজব ছড়িয়ে সরকারকে বিব্রত করা। যেকোনো ইস্যু তৈরি হলেই সেটি সরকারের বিরুদ্ধে ব্যবহার করা।

এছাড়া, বিএনপির সিনিয়র নেতাদের ওপর অনাস্থা থেকে তারেক রহমান সুশীল সমাজের একাংশের সঙ্গে যোগাযোগ স্থাপনে সক্ষম হয়েছেন বলে তথ্য পাওয়া যায়।  এ ক্ষেত্রে  ড. কামাল হোসেনকে ব্যবহার করছেন তারেক রহমান।

সংশ্লিষ্ট সূত্রগুলো বলছে, ড. কামাল হোসেনের জামাতা ডেভিড বার্গম্যান তারেকের পক্ষ থেকে সুশীল সমাজের একাংশকে সরকারের বিরুদ্ধে উসকে দেওয়ার কাজ করছেন। দেশের বুদ্ধিজীবীদের সঙ্গে বার্গম্যানের ভালো যোগাযোগ রয়েছে।  সূত্র বলছে, তারেকের নেটওয়ার্ক চিহ্নিত হয়েছে।  এখন এই নেটওয়ার্কে জড়িতদের শনাক্ত করা এবং তাদের আইনের আওতায় আনার কাজ চলছে। সূত্র-বাংলা নিউজ পোস্ট

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই

একটি উত্তর ত্যাগ