বিএনপি থেকে মুক্তি চায় জামায়াত

বিএনপি থেকে মুক্তি চায় জামায়াত

ভাগ

নিউজ ডেস্ক:

১৯ বছরের পুরনো মিত্র জামায়াতে ইসলামী আন্দোলনমুখী বিএনপির পাশে নেই। সম্প্রতি সিটি নির্বাচন নিয়ে ২০ দলীয় জোটের প্রধান দুটি শরিক দল জামায়াত-বিএনপি একে অপর থেকে অনেকদূরে সরে গেলেও এর গভীরে রয়েছে আরও কিছু কারণ। এমন পরিস্থিতিতে জামায়াতের নেতারা মরিয়া হয়ে উঠেছে বিএনপির সঙ্গ ত্যাগ করতে। তারা বলছে, বিএনপির আর কোনো আন্দোলনে যোগ দিয়ে রাজনৈতিক পরিবেশকে আরও প্রতিকূল করতে আগ্রহী নয় জামায়াত।

তবে কেন বিএনপির সাথে একতাবদ্ধ হয়ে নতুন কোনো আন্দোলনে শরিক হচ্ছে না জামায়াত? অনুসন্ধানে বের হয়ে এসেছে বিভিন্ন তথ্য। জামায়াতের দায়িত্বশীল একাধিক নেতার সাথে কথা বলে জানা যায়, বিএনপির আন্দোলনে যোগ না দেয়ার কারণ হচ্ছে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের সময় বিএনপির নীরব অবস্থান। সেই তথ্যমতে, নিজেদের মিত্র বিএনপির দেখানো পথেই হাঁটছে জামায়াত।

সূত্র বলছে, আন্দোলনের না জড়ানোর পক্ষে জামায়াতের অভিমত হচ্ছে, বিএনপি চেয়ারপারসনের মুক্তির দাবিতে আন্দোলন একান্তই বিএনপির ইস্যু। এ ইস্যু জোটের ইস্যু নয়। তাই কোনভাবেই বিএনপি’র নিজস্ব রাজনৈতিক আন্দোলনের সাথে নিজেদেরকে জড়াতে চায় না তারা। তাছাড়া অগ্নিসংযোগ থেকে শুরু করে বিভিন্ন নাশকতার মামলায় জামায়াতের নেতা-কর্মীরা জড়িত থাকায় জামায়াত দলীয় কর্মসূচিই পালন করতে পারছে না। দলীয় কার্যালয় খুলতে পারছে না। এমন পরিস্থিতিতে বিএনপির সমর্থনে আন্দোলনে নামলে জামায়াতের বিরুদ্ধে ধরপাকড় জোরালো হবে। জোট মিত্রের জন্য আবারও প্রতিকূল পরিস্থিতিতে পড়তে নারাজ জামায়াত।

অন্যদিকে বিভিন্ন সময় বিএনপির পক্ষ থেকে জামায়াতকে সুযোগ-সুবিধা প্রদানের ভরসা দিলেও তা নিয়ে কোনো বিশেষ পদক্ষেপ নেয়নি দলটি। ফলে আশাহত জামায়াত ধুকে ধুকে মরার চেয়ে স্বতন্ত্রাবস্থানে দাঁড়াতে চায়।

জামায়াতের বিশ্বস্ত সূত্র মারফত জানা গেছে, জোট হতে বিতাড়িত হওয়ার আশঙ্কা করছে দলটির নীতিনির্ধারকরা। তারা নিশ্চিত হতে পেরেছে যে, বিভিন্ন কারণ দেখিয়ে আগামী নির্বাচনে জোট হতে জামায়াতকে বহিষ্কার করে দিতে পারে বিএনপি। এ সমস্ত কারণে বিএনপির আন্দোলনে নিজেদের যুক্ত করাকে ভালো সিদ্ধান্ত হিসেবে দেখছে না জামায়াত।

যদিও সিটি নির্বাচন নিয়ে দূরে সরে যাওয়া জামায়াতকে নতুন করে পাশে পেতে বিভিন্ন আশার বানী শোনাচ্ছেন। জানা গেছে, বিগড়ে যাওয়া সম্পর্ক স্বাভাবিকে আনতে আগামী সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হওয়া বিশ্ববিদ্যালয় এবং মেডিকেল কলেজের ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁসের গুজব ছড়িয়ে জামায়াতকে নতুন করে ছাত্র আন্দোলন শুরুর প্রস্তুতি নিতে নির্দেশ দিয়েছে বিএনপি। আর এতে সফল হলেই জোটে জামায়াতের অবস্থান স্পষ্ট করবে দলটি। তবে জামায়াতের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, আন্দোলনকে পুঁজি করে অবস্থান পোক্ত করতে এটি বিএনপি নতুন ফাঁদ। তবে আর কোনো ফাঁদে পা দেবে না জামায়াত। সূত্র বাংলা নিউজ পোস্ট।

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই

একটি উত্তর ত্যাগ