ঈদগাঁওর মাছুয়াখালী-চৌফলদন্ডী সংযোগ সেতু নির্মাণের দাবী

ঈদগাঁওর মাছুয়াখালী-চৌফলদন্ডী সংযোগ সেতু নির্মাণের দাবী

ভাগ
Exif_JPEG_420

এম আবু হেনা সাগর,ঈদগাঁও

কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁও মাছুয়াখালী সিকদার পাড়া (মগঘাটা) হতে চৌফলদন্ডী খামার পাড়া সংযোগ সড়ক ও সেতু নির্মাণের দাবী জানান সচেতন এলাকাবাসী।
প্রাপ্ত তথ্য মতে, এলাকার লোকজন দীর্ঘদিন ধরে যোগাযোগ ব্যবস্থার সুযোগ থেকে বঞ্চিত।

মানব সম্পদ এবং স্থানীয় সম্পদকে কাজে লাগিয়ে নিরবিচ্ছিন্নভাবে দেশের অর্থনীতিতে অবদান রেখে যাচ্ছে এ অঞ্চলের জনগোষ্ঠি। এমনকি হাজার হাজার লোক মধ্যপ্রাচ্যে কর্মরত থেকে দেশে বৈদেশিক মুদ্রা প্রেরণে বহুদিন যাবত সাবির্ক সহযোগিতা করে যাচ্ছে।
এছাড়াও মৎস্য, লবণ, চিংড়ি উৎপাদনে জেলায় অগ্রণী ভূমিকা রেখে যাচ্ছে এ এলাকা। বর্তমান সরকার কর্তৃক গৃহীত শিক্ষা কার্যক্রমের আওতায় এলাকায় শিক্ষিতের হারও মোটামুটি পর্যায়ে বললেই চলে।

এদিকে দীর্ঘকাল ধরে জীবন-জীবিকার তাগিদে প্রতিনিয়ত ১০ থেকে ১২ হাজার লোকজন চৌফলদন্ডী হয়ে প্রতিকূল পরিবেশের মাধ্যমে কক্সবাজার শহরে নানা কাজকর্মে যাতায়াত করে যাচ্ছে। মগঘাটা খালের উপর সেতু না থাকায় জোয়ার-ভাটায় নির্ভরশীল এলাকার অসংখ্য শিক্ষার্থী, চাকুরিজীবী, ব্যবসায়ীসহ সাধারণ লোকজন।

সুষ্ঠ ও সুন্দর যোগাযোগ ব্যবস্থা না থাকার কারণে জরুরী অবস্থায় মুমুর্ষ রোগী ও প্রসূতি মহিলাদের সদর হাসপাতাল ছাড়াও অন্যান্য হাসপাতালে নিয়ে যেতে সময় ও অর্থের অপচয় ঘটে বেশির ভাগই। কিন্তু সত্য কথা যে, ঈদগাঁও মাছুয়াখালী সিকদার পাড়া (মগ ঘাটা) ও চৌফলদন্ডী খামার পাড়া সংযোগ সড়ক ও সেতু নির্মাণ হলে আধঘন্টা কিংবা তারও কম সময়ের মধ্যে প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে জীবন-জীবিকার তাগিদে এলাকার সুবিধা বঞ্চিত লোকেরা পর্যটন শহর কক্সবাজারে স্বল্প সময়ে আসা-যাওয়ার সুযোগ সৃষ্টি হবে।

উম্মোচিত হবে জেলার অর্থনৈতিক উন্নয়নের নতুন দিগন্ত। সৃষ্টি হবে অসংখ্য শিক্ষিত বেকার যুবক-যুবতীদের নানামুখী কর্মসংস্থানের সুযোগ।
এছাড়াও উক্ত সড়ক ও সেতু নির্মাণের দাবীতে সচেতন এলাকাবাসী, সুশীল সমাজ, ব্যবসায়ী ও পেশাজীবী প্রতিনিধিরা নানা আন্দোলন-সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে।

তবে স্থানীয় কয়েকজন শ্রমিকের সাথে কথা হলে তারা জানান, এ সেতু নির্মিত হলে এলাকার লোকজন সহজে কক্সবাজারে প্রয়োজনীয় কাজেকর্মে আসা যাওয়া করতে পারবে পাশা পাশি সময়ও অর্থের অপচয় থেকে কিছুটা হলেও মুক্তি পাবে। সেতু বাস্তবায়ন কমিটির আহবায়ক আবু নাছের ভুট্টোর মুঠোফোনে সংযোগ না পাওয়ায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই

একটি উত্তর ত্যাগ