বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী সেলিমের হুঁশিয়ারি

বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী সেলিমের হুঁশিয়ারি

ভাগ

নিউজ ডেক্স:

সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরীকে তথা স্বয়ং বিএনপিকে বিদ্রোহী প্রার্থী বদরুজ্জামান সেলিম কড়া হুঁশিয়ারি দিয়েছেন। জানা গেছে, বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে নির্বাচনের সিদ্ধান্তে অটুট থাকায় তাকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়েছে। এর প্রেক্ষিতে সেলিম বলেছেন, বিএনপির নেতা-কর্মীরা দলের মনোনীত মেয়র প্রার্থী আরিফুল হক চৌধুরীকে জবাব দেয়ার জন্য মুখিয়ে আছে। জবাব দেয়া হবে ব্যালটে। একই সাথে তিনি বিএনপিকেও উৎকৃষ্ট জবাব দেয়ার হুঁশিয়ারি দেন বলে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, ৯ জুলাই সিলেটে দলের প্রবীণ নেতা বদরুজ্জামান সেলিম প্রার্থিতা প্রত্যাহার না করায় পরদিন তাকে বহিষ্কার করে বিএনপি। একই দিন তিনি নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্দ পান। বিএনপি এখনও আশা করছে, সেলিম শেষ পর্যন্ত ভোটে থাকবেন না। যদিও তিনি বলছেন, শেষ পর্যন্ত ভোটে থাকবেন আর বিএনপিকে দেখিয়ে দেবেন।

এ প্রসঙ্গে সেলিম বলেন, আমি পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী নাগরিক কমিটির ব্যানারে নির্বাচন করব। ৩৯ বছরের রাজনীতিতে আমি দলের কোনো সিদ্ধান্তের বাইরে যাইনি। এবার আমি আমার দলের নেতাকর্মীর চাপের মুখে মনোনয়ন জমা দিয়েছি। ৩০ জুলাই নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থীর বিপক্ষে নেতাকর্মীরা ব্যালটের মাধ্যমে জবাব দেবে।

দল থেকে বহিস্কার বিষয়ে দুঃখ প্রকাশ করে সেলিম বলেন, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী আমাকে বললেন, তুমি নির্বাচন থেকে বসে যাও। আমি তাকে বলেছিলাম, ‘আমার শরীরটা খারাপ, আধা ঘণ্টা সময় দেন। নেতাকর্মীদের সঙ্গে কথা বলে জানাব।’ খসরু বললেন, ‘ঠিক আছে তুমি আধাঘণ্টা সময় নাও’। কিন্তু এরমধ্যে আমাকে বহিষ্কার করা হয়েছে। নো প্রবলেম। এতে আই অ্যাম নট আনহ্যাপি। কারণ দল যখন আমাকে মনোনয়ন দেয়নি তখন আমি ৮ তারিখ সংবাদ সম্মেলন করে মহাসচিবের কাছে অব্যাহতি পত্র পাঠিয়েছিলাম। মহানগরেও জমা দিয়েছিলাম। এখন আমাকে বহিষ্কার করা হলো।

এ বিষয়ে সিলেট বিএনপির একজন নেতা বলেন, বদরুজ্জামান সেলিম ভাই দলের প্রবীণ ব্যক্তি। আমরা সব সময়ই চেয়েছি তাকে যেন কেন্দ্রীয় বিএনপি সম্মানের জায়গায় রাখে। কিন্তু আরিফুল হক চৌধুরীর পক্ষে থাকতে গিয়ে বিএনপি যে লোক হাসানো সিদ্ধান্ত নিলো তার স্পষ্ট জবাব অচিরেই পেয়ে যাবে বিএনপি।

এমতাবস্থায় সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী ও বিদ্রোহী প্রার্থী উভয়েরই ভোটে পরাজয়ের আশঙ্কা দেখছে রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা। তারা বলছেন, বিএনপির দুই প্রার্থী ও শরিক দল জামায়াতের প্রার্থীর মোট ভোট আলাদা আলাদা ভাগে ভাগ হয়ে যাবে। এতে লাভবান হবে আওয়ামী লীগ প্রার্থী।

প্রসঙ্গত, আগামী ৩০ জুলাই সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচন অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা রয়েছে। এরইমধ্যে নির্বাচন সুষ্ঠু করতে যাবতীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করছে নির্বাচন কমিশন। সূত্র-বাংলানিউজ পোস্ট

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই

Comments are closed.