ঈদগাঁওতে মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য বিক্রির হিড়িক

ঈদগাঁওতে মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য বিক্রির হিড়িক

ভাগ

এম আবুহেনা সাগর,ঈদগাঁও

সদর উপজেলার বৃহত্তর ঈদগাঁওর বিভিন্ন দোকানে মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য বিক্রি চলছে । এতে করে সাধারন জনগন নানাভাবে প্রতারিত হচ্ছে। এ বিষয়ে সচেতন লোকজন অভিযান পরিচালনার জোর দাবী জানিয়েছেন ।

জানা যায়, জেলা সদরের বৃহৎ বানিজ্যিক নগরী ঈদগাঁও বাজারসহ পাশ্বর্বতী উপবাজার সমুহের অসংখ্য ব্যবসায়ীক দোকান পাঠে মেয়াদ উক্তীর্ণ পণ্য বিক্রি হচ্ছে হরদম।

এমনকি ফার্মেসী গুলোতে ও মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ বিক্রি হচ্ছে। এদিকে ঈদগাঁও বাজারের বিভিন্ন পয়েন্ট, কালিরছড়া বাজার,মুসলিম বাজার, তেতুলগাছ তলা বাজার, নতুন অফিস বাজার, কলেজ গেইট বাজারসহ গ্রামাঞ্চলের বিভিন্ন স্থানের দোকানগুলোতে মেয়াদ উত্তীর্ন খাদ্যসামগ্রী বিক্রি হচ্ছে। অন্যদিকে গত দুয়েকদিন পূর্বে ঈদগাঁও বাজারের মাছ বাজার সংলগ্ন পয়েন্টে এক মুদির দোকানে ভাল মানের একটি খাবার তৈল কিনতে গিয়ে বিগত বছর তথা ২০১৭ সালের উৎপাদিত একটি তৈল দেয়। পরে চাপাচাপি করলে দোকান মালিক নিরুপায় হয়ে নতুন বছরের তৈল এখনো আসেনি বলে জানান। অন্য একটি দোকান থেকে চলতি বছরের নতুন একটি তৈল নিয়ে নিলাম।

এভাবে গ্রামাঞ্চল থেকে ঈদগাঁও বাজার প্রয়োজনীর জিনিসপত্র কিনতে আসা লোকজনদেরকে  সরলতার সুযোগে মেয়াদ উক্তীর্ণ পন্যসামগ্রী ধরিয়ে দেয় সুচতুর দোকানের কর্মচারীরা। আবার অনেকে পরিচিতির খাতিলে প্রতিবাদ করার সাহস ও পাচ্ছেনা।

এলাকার সচেতন লোকজন জানান, অতিসত্বর বৃহত্তর এলাকাতে যদি মেয়াদ উক্তীর্ণ পন্যের বিরুদ্বে অভিযান পরিচালিত হয়, তাহলে ব্যবসায়ীরা সতর্ক হয়ে যাবে। আবার প্রশাসনের নজরদারী কঠোর না থাকায় এলাকার কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা মেয়াদ উত্তীর্ণ পণ্য বিক্রি করার সুযোগ পাচ্ছে বলে ও জানান দূর দুরান্ত থেকে আসা বহু ক্রেতা সাধারন। এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কমকর্তার সুদৃষ্টি কামনা করেন সচেতন মহল।

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই

একটি উত্তর ত্যাগ