বিলুপ্ত সমুদ্র গাভীর মুণ্ডুবিহীন কঙ্কাল পেলেন বিজ্ঞানী!

বিলুপ্ত সমুদ্র গাভীর মুণ্ডুবিহীন কঙ্কাল পেলেন বিজ্ঞানী!

ভাগ

আলোকিত কক্সবাজার ডেক্স:

রাশিয়ার উত্তর-পূর্বে বিজ্ঞানীরা খুঁজে পেয়েছেন বিলুপ্ত প্রাণি স্টেলার সি কাউ। এটাকে সমুদ্র গাভী বলেই চিনি আমরা।

তবে তার জীবাশ্মটি মুণ্ডুবিহীন ছিল। তবুও এই দানবীয় আকারের বিলুপ্ত প্রাণী সম্পর্কে অনেক নতুন তথ্য মিলবে বলে মনে করা হচ্ছে। আগের কিছু রহস্যও ঘুঁচে যাবে।

ওয়াশিংটনের হোয়ার্ড ইউনিভার্সিটির প্রফেসর ড্যারিল ডমনিং জানান, যেমন- বিজ্ঞানীরা জানতেন না স্টেলাস সি কাউ এর মেরুদণ্ডে কতগুলো হাড় ছিল। তার সাঁতার কাটার ফ্লিপার দেখতে কেমন ছিল? এমন আরো অনেক প্রশ্নের জবাব মিলবে।

এর আগে অনলাইনে প্রকাশিত বয়ান থেকে আসলে স্টেলাস সি কাউ সম্পর্কে বিস্তারিত ধারণে মেলেনি। তবে তার মোটামুটি পূর্ণ একটি কঙ্কল প্রথমবারের মতো মিলল। রাশিয়ার কোমানডরস্কাই ন্যাচার রিজার্ভে রুটিন জরিপ করতে গিয়েছিলেন গবেষক ম্যারিনা শিতোভা। তিনি আবিষ্কার করেন এই স্টেলাস সি কাউ যার বৈজ্ঞানীক নাম হাইড্রোডামালিস গিগাস।

বালু ও নুড়ির মধ্য থেকে কোনো মৃত প্রাণীর হাড়গোড় উঠে এসেছে দেখতে পান তিনি। কয়েক দিন পর তিনি এবং খননে দক্ষ কয়েকজন ফিরে আসেন সেখানে। মোটা আট জন মানুষ ৪ ঘণ্টার প্রচেষ্টায় সাগরের গরুর কঙ্কাল বের করতে সক্ষম হন।

কঙ্কালটির দৈর্ঘ্য ১৭ ফুটের মতো। তবে তার তমাথা ছিল না। তাই পরিমাপে মাথার অংশটি যোগ হয়নি। মাথাসহ কঙ্কালের দৈর্ঘ্য ২০ ফুটের মতো হবে। এটা দৈর্ঘ্যে আধুনিক কিলার হোয়েলের সমান বলে জানান বিজ্ঞানীরা।

এটা বিরল ঘটনা যে, আবিষ্কৃত বিলুপ্ত প্রাণীটির মাথা ছাড়া হলেও পরিপূর্ণ কঙ্কাল মিলেছে। বিগত ২০০ বছর ধরে এই প্রাণীটির দেহের দুই একটি হাড়ের খোঁজ মিলেছে। তাই এর সম্পর্কে পরিষ্কার কোনো ধারণা নেই। এর আগে একবার শুধু একটি স্টেলাস সি কাউ এর পূর্ণ দেহের কঙ্কাল মিলেছিল। ত্রিশ বছর আগে মেলা কঙ্কালটির দৈর্ঘ্য ছিল ১০ ফুট। কিন্তু নতুনটি সেই সত্যিকার দানবীয় আকারের সি কাউ।

এক বিবৃতিতে জানানো হয়, এই কঙ্কালটি নিয়ে নতুনভাবে গবেষণা শুরু হবে। সেই সঙ্গে কোমানডরস্কি ন্যাচার রিজার্ভে আসা দর্শণার্থীদের জন্যে সেখানে প্রদর্শিত হবে।
সূত্র : ফক্স নিউজ/কালেরকণ্ঠ

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই

একটি উত্তর ত্যাগ