ঈদগড়ে অপহৃত ২ ব্যাক্তি উদ্ধার হয়নি

ঈদগড়ে অপহৃত ২ ব্যাক্তি উদ্ধার হয়নি

ভাগ

কামাল শিশির,রামু:

কক্সবাজার রামুর ঈদগড়ে অপহরণচক্রের হাতে অপহৃত ব্যবসায়ী মো:নুরুল আমিন ও হেলাল উদ্দিন এখনো উদ্ধার হয়নি । তারা ঈদগড় বাইতুশরফ এলাকার মৃত খুইল্যা মিয়া ও আসাদ মিয়ার পুত্র । প্রাপ্ত তথ্যে প্রকাশ, ২৮নভেম্বর রাত ১০টায় ঈদগাঁও থেকে ঈদগড় আসার পথে ঈদগড় পানেরছড়া ঢালা এলাকা হতে ৭-৮জনের অপহরণকারী তাদেরকে অপহরণ করে পার্শ্ববর্তী গহীণ অরণ্যে নিয়ে গিয়ে ৩লক্ষ টাকা মুক্তিপন দাবী করে। এসময় অপহরণকারীরা নগদ টাকা ও মোবাইল ফোন লুট করে নিয়ে যায় অন্য যাত্রিদের এবং কয়েকজন যাত্রী তাদের কবল থেকে পালিয়ে যায় বলে জানান পালিয়ে আসা অপর যাত্রী আবদুল্লাহ ।

এ খবর পেয়ে রামু থানা ওসি লিয়াকত আলীর নির্দেশে এ এস আই মোর্শেদ আলম,সাংবাদিক,এলাকাবাসীসহ এক দল পুলিশ সাথে সাথে অপহৃত এলাকার পার্শ্ববর্তী গভীর জঙ্গলে রাতভর অভিযান চালান । এ সময় অপহরণকারীরা পুলিশের গতিব্যাধি লক্ষ্য করে বার বার স্থান বদলানোর কারণে পুলিশ তাদেরকে উদ্ধার করতে পারেনি । এছাড়া ২৯ নভেম্বর সকালে ও রাতে পুলিশ উল্লেখিত স্থানে অভিযান চালায় বলে জানান ঈদগড়ে দায়িত্বরত রামু থানা এএসআই মোর্শেদ আলম । উল্লেখ্য গত ২বছর ধরে ঈদগড় -ঈদগাঁও -বাইশারী সড়কে প্রায় ৩৬জনের মত লোক অপহরণের শিকার হলেও বিগত ৩/৪ মাস ধরে সড়কে অপহরণ বন্ধ ছিল । এর মধ্যে অপরণকারী চক্রের সদস্যরা আবার সক্রিয় হয়েছে । বিগত কিছু দিন আগে ঈদগড়ে চিহ্নিত সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার এর দাবীতে বিভিন্ন পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয় ।

এতদিন পর আবারো অপহরণ অব্যাহত থাকায় ঈদগড় -বাইশারীর জনসাধারণের মাঝে আতংক বিরাজ করছে । রাত ৮টায় এ সংবাদ লিখাকালীন সময়ে অপহৃতদের উদ্ধারের অভিযান চলছে এবং এখনো উদ্ধার হয়নি বলেও জানান এ এস আই মোর্শেদ আলম । তবে যে কোন মুহুর্তে উদ্ধার করা যাবে। এসব অপহরণ ও ডাকাতি বন্ধে উল্লেখিত এলাকায় গুচ্ছ গ্রাম বসানোর দাবী জানান এলাকাবাসী ।

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই

একটি উত্তর ত্যাগ