রোজায় শসা খাবেন যে কারণে

রোজায় শসা খাবেন যে কারণে

ভাগ

আলোকিত কক্সবাজার ডেস্ক:

প্রতিদিন আমাদের শরীরে যেসব ভিটামিনের দরকার হয়, এর বেশির ভাগই আছে শসার মধ্যে। ভিটামিন এ, বি ও সি শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা ও শক্তি বাড়ায়। শসায় খাদ্যআঁশ আছে প্রায় ০.৬ গ্রাম, শর্করা ৩.৬১ গ্রাম এবং চিনি ১.৬৮ গ্রাম। এতে আরো রয়েছে ফাইটোনিউট্রিয়েন্টস, কিউকারবিটাকিন্স, লিগনান্স এবং ফ্লাভনয়েডসসহ অজস্র খাদ্য উপাদান। সব ঋতুতে সব এলাকায় পাওয়া যায় এটি। শসার রয়েছে অনেক গুণ। সবুজ শাক ও গাজরের সঙ্গে সালাদ হিসেবে শসা দারুণ। শসা খেতে পারেন জুস বানিয়েও। তাই প্রতিদিনের ইফতারে শসা রাখতে পারেন আপনার খাদ্যতালিকায়।

শসার ৯০ শতাংশই পানি। তাই পানির অভাব পূরণে এর ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ। হাতের কাছে পানি না থাকলে শসা খেয়েও পিপাসা মেটানো সম্ভব। শরীরে জ্বালাপোড়া হলে একটি শসা খেয়ে নিন, আরাম পাবেন। তাছাড়া সূর্যের তাপে ত্বকে জ্বালা অনুভব করলে শসা কেটে ত্বকে ঘষে নিন। নিশ্চিত ফল পাবেন।

শসার মধ্যে যে পানি থাকে তা আমাদের দেহের বর্জ্য ও বিষাক্ত পদার্থ অপসারণে অনেকটা যাদুর মতো কাজ করে। নিয়মিত শসা খেলে কিডনিতে সৃষ্ট পাথরও গলে যায়। শসায় উচ্চমাত্রায় পটাশিয়াম ম্যাগনেশিয়াম ও সিলিকন আছে যা ত্বকের পরিচর্যায় বিশেষ ভূমিকা রাখে। এজন্য ত্বকের পরিচর্যায় গোসলের সময় অনেকে শসা ব্যবহার করেন। সূত্র-জাগোনিউজ

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই

একটি উত্তর ত্যাগ