শহরে ইয়াবাসহ পাচারকারী আটকের ঘটনায় পৃথক মামলা

শহরে ইয়াবাসহ পাচারকারী আটকের ঘটনায় পৃথক মামলা

ভাগ

নিজস্ব প্রতিবেদক:

শহরে এস এ পরিবহণ থেকে ইয়াবাসহ ৩ জন আটকের ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ২১ ফেব্রুয়ারি কক্সবাজার মডেল থানার এসআই মো: আবুল কালাম এবং জেলা গোয়েন্দ পুলিশের এসআই(নিরস্ত্র) মো: ইমাম হোসেন বাদি হয়ে এ মামলা দুটি দায়ের করেন। আটককৃতরা হলেন, নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম এলাকার মৃত আব্দু জব্বারের মেয়ে রহিমা আক্তার রেশমি(২২), সরওয়ার আলম(২০) এবং টাঙ্গাইল জেলার ঘাটাইল উপজেলার পাতিয়া কান্দি মন্ডল পাড়া এলাকার মৃত হাবিবুর রহমান’র পুত্র জাহেদুল ইসলাম জাহিদ(২৮)।  মামলা দুটি নং হচ্ছে ৯৩/১৭ এবং ৯৫/১৭।  বুধবার আটককৃতদের জেলা হাজাতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সন্ধ্যায় কক্সবাজার হলিডেমোড়স্থ এসএ পরিবহণের মাধ্যমে ইয়াবা পাচার হচ্ছে এমন সংবাদের ভিত্তিতে কক্সবাজার মডেল থানার এসআই মো: আবুল কালামের নেতৃত্বে অভিযান পরিচালনা করা হয়। এসময় এসএ পরিবহণের ম্যানেজারের কক্ষে থাকা সন্দেহভাজন মহিলা রহিমা আক্তার রেশমিকে আটক করে। পরে আটক মহিলার হাতে থাকা পাচারের জন্য বার্মিজ আচারের প্যাকেটের ভেতর থেকে ১৬’শ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য ৬ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা। আটক মহিলা নাইক্ষ্যছড়ি উপজেলার ঘুমধুম এলাকার মৃত আব্দু জব্বারের কন্য।

অপরদিকে, একই দিনে জেলা গোয়েন্দা পুলিশের এসআই(নিরস্ত্র) মোহাম্মদ ইমাম হোসেন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এসএ পরিবাহণে অভিযান চালানো হয়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে ৩ যুবক পালানোর চেষ্টা করলে তাদের আটক করা হয়। এসময় একজন পাচারকারী পালিয়ে যায়। পরে আটককৃতদের হাতে থাকা পাচারের জন্য পার্সেল করা অবস্থায় ৪ হাজার ৮’শ ইয়াবা উদ্ধার করা হয়। যার আনুমানিক মূল্য ১৪ লক্ষ ৪০ হাজার টাকা। তবে এসময় আব্দুল মালেক নামে অপর এক অসামী পালিয়ে যায় বলে জানান এস আই ইমাম হোসেন।
এ ঘটনায় পৃথক দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই

একটি উত্তর ত্যাগ