মুক্তিযোদ্ধা শমশের আলম চৌধুরী গুরুতর অসুস্থ

মুক্তিযোদ্ধা শমশের আলম চৌধুরী গুরুতর অসুস্থ

ভাগ

শফিক আজাদ, উখিয়া:

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঘনিষ্ট সহচর, বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ, মজলুম জননেতা, বীর মুক্তিযোদ্ধা, রত্নাাপালং ইউনিয়নের একাধিকবার নির্বাচিত চেয়ারম্যান শমসের আলম চৌধুরী গুরুতর অসুস্থ।

উখিয়ার ইতিহাসে স্বাধীনতা যুদ্ধে যিনি অনন্য ভূমিকা রেখে পুরো কক্সবাজারবাসিকে গর্বিত ও গৌরমান্বিত করে তুলেছেন এবং স্বাধীনতাযুদ্ধ স্মারক গ্রন্থে নাম লিখেছেন সেই শমশের আলম চৌধুরী।

গত ৭ ফেব্রুয়ারী বার্ধক্যজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে বর্তমানে চট্টগ্রামস্থ সার্জিস্কোপ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছেন।

তার ছেলে উপজেলা আওয়ামীলীগের সাবেক সভাপতি, কবি অধ্যাপক আদিল চৌধুরী বলেন, আমার বাবা হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়লে প্রথমে কক্সবাজার ডিজিটাল পরবর্তীতে চট্টগ্রাম সার্জিস্কোপ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বর্তমানে একটু উন্নীতির দিকে মনে হলেও এখনো জ্ঞান ফিরে আসেনি। তিনি এসময় সকল ধর্ম-বর্ণের মানুষকে তার পিতা প্রতি দোয়া করার অনুরোধ জানান।

উল্লেখ্য যে, সে ১৯২০ সালে উখিয়ার উপজেলার রত্নাপালং ইউনিয়নের মাতাব্বরপাড়া এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্ম গ্রহন করেন। তার পিতা-মরহুম হাকিম আলী চৌধুরী, মাতা-আমেনা খাতুন। রত্নাপালং ইউনিয়নের কোটবাজার এমই স্কুল হতে প্রাথমিক শিক্ষা শুরু হয়ে তৎকালীন বৃটিশ আমলে কক্সবাজারস্থ উচ্চ বিদ্যালয় থেকে এনট্রাষ্ট পাশ(বর্তমান এসএসসি) করেন। তখনকার সময়ে জেলায় আর কোন উচ্চ শিক্ষা প্রতিষ্টান না থাকায় তিনি বেশিদুর এগোতে পারেনি।

বৃটিশ শাসনামলে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে তিনি চৌকস সামরিক প্রশিক্ষক এবং সিনগ্যালকোরে কর্মরত ছিলেন। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ শেষ হওয়ার পর তিনি চাকুরী ছেড়ে দেয়। পাকিস্তান সরকারের আমলে সে বৃহত্তর চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৬২ থেকে ১৯৮৮সাল পর্যন্ত দীর্ঘ সময় তিনি রত্লাপালং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ছিলেন। বিশেষ করে ১৯৭১সালে আগ মুহুর্ত থেকে সক্রিয় ভাবে মুক্তিযোদ্ধায় অংশ গ্রহন করে এক ইতিহাস রচয়িত করেন। ১স্ত্রী, ৬ ছেলে এবং ৩মেয়ের জনক তিনি।

সূত্র-সিবিএন

ভাগ

কোন মন্তব্য নেই

একটি উত্তর ত্যাগ