নোটিশঃ
যান্ত্রিক  কারনে সাময়িক সমস্যার জন্য আন্তিরকভাবে দুঃখিত - আলোকিত কক্সবাজার পরিবারে যুক্ত থাকায় আপনার কাছে কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ
সংসার করা হলো না সাফের সাথে !

সংসার করা হলো না সাফের সাথে !

ডেস্ক নিউজ:

বাড়িজুড়ে ঘোরাফেরা করছিল অন্তত ১৪০টি সাপ। আর গলায় পাইথন জড়ানো অবস্থায় ঘরের মেঝেতে পড়ে ছিলেন এক তরুণী। মৃত ওই নারীর নাম লরা হার্স্ট।

সম্প্রতি গা শিউরে ওঠার মতো এ ঘটনা ঘটেছে যুক্তরাষ্ট্রে।

জানা গেছে, যুক্তরাষ্ট্রের ইন্ডিয়ানার বাসিন্দা লরা হার্স্ট। সর্পপ্রেমী এই মানুষটির প্রাণ নিল সেই সাপই।

পুলিশের পক্ষ থেকে কিম রিলে জানাচ্ছেন, গত বুধবার লরার পাশের বাড়ি থেকে এমন ভয়ংকর অবস্থায় তাঁর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। দেখা যায়, প্রায় আড়াই মিটার (আট ফুট) দীর্ঘ একটি পাইথন জড়িয়ে রয়েছে তাঁর গলায়।

চিকিৎসকরা তাঁর গলা থেকে সেই পাইথন ছাড়ানোর চেষ্টাও করেন। কিন্তু সেটি এমনভাবেই তাঁর গলা জাপটে ছিল, যে তাকে কোনওভাবেই আলাদা করা যায়নি।

সাধারনত পাইথনে  বিষ  থাকে না। আফ্রিকা, এশিয়া ও অস্ট্রেলিয়ায় মোট ৩০ ধরনের পাইথন পাওয়া যায়। এদের মধ্যে কিছু পাইথন দৈর্ঘ্যে বেশ লম্বা। তাদের দাঁতই আসল অস্ত্র। আক্রান্তকে এমনভাবে কামড়ায়, যে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়েও মৃত্যু হতে পারে। তবে এক্ষেত্রে ঠিক কী ঘটেছিল, তা এখনও স্পষ্ট নয়।

সংবাদমাধ্যমের বরাতে জানা গেছে, মৃতদেহ দেখে মনে হচ্ছে, দীর্ঘক্ষণ সেই বিরাট সাপটির সঙ্গে লড়াই করেছিলেন লরা। তবে ময়নাতদন্ত না হওয়া পর্যন্ত মৃত্যু নিয়ে বিস্তারিত কিছু বলা যাবে না।

প্রশ্ন উঠেছ যে, বাড়িটিতে মানুষের বাস, সেখানে এত সাপ কী করছিল?

জানা গেছে, বেন্টন কাউন্টি শেরিফ এবং ডন মুনসনের পরিবার সাপ সংগ্রহ করতে ভালবাসত। সেখানেই নিজের ২০টি সাপ রেখেছিলেন প্রতিবেশী লরা। আর বেন্টনদের বাড়িতেই ঘটে এই কাণ্ড। ডনই প্রথম লরার মৃতদেহ দেখে পুলিশে খবর দেন। লরার মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ তাঁর পরিবার। এই ঘটনার পর সতর্ক হচ্ছেন ডন ও বেন্টনের বাড়ির অন্যান্য সদস্যরাও। সূত্র-কালেরকণ্ঠ


মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

আবহাওয়া

COX'S BAZAR WEATHER